6.6 C
Toronto
রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০২৪

গুরুত্বপূর্ণ নারী হলেন আমার মা

গুরুত্বপূর্ণ নারী হলেন আমার মা

আমার জীবনে সবচেয় গুরুত্বপূর্ণ নারী হলেন আমার মা। কড়া শাসনে তিনি আমাকে মানুষ করার চেষ্টা করেছেন। বিকালে বাইরে খেলতে যাবার পারমিশন ছিল যদি আমি সন্ধ্যার আগে বাসায় ফিরি। মাগরিবের আযানের পরে বাসায় ফিরে অনেকবার স্যান্ডেলের পিটুনি খেয়েছি। হাতের লেখা বাঁকা হলে হাতের আঙুলের উপর বেতের পিটুনি খেয়েছি। গোয়ালন্দে থানার মাঠে এবং আশে পাশে অনেকগুলো টিনের বিশাল বড় গোডাউন ছিল।

- Advertisement -

স্বাধীনতার পর পর সেখানে সিনেমা, যাত্রা প্রদর্শন হতো। এসব দেখার পারমিশন ছিল না বললেই চলে, রাতে যাবার প্রশ্নই উঠতো না। তবুও কালে ভদ্রে পালিয়ে দু একবার গিয়েছি। একবার অনেক রাতে বাসার কাজের ছেলেটাকে সাথে নিয়ে গিয়ে, ভোর হবার আগেই ফিরে এসে দেখি কাচারী ঘরের দরজার পেছনে জুতা নিয়ে মা অপেক্ষা করছেন। এরকম অনেক ঘটনা আছে যা লিখে কলেবর বৃদ্ধি করতে চাই না। মা, বাবার কড়া শাসনের পরেও যতটুকু মানুষ হওয়া উচিত ছিল তা হতে না পারার দুঃখ কোনদিনই যাবে না। এখনো শারীরিক অসুস্হ্যতা নিয়ে মা যতটুকু আমাদের জন্যে করেন তা কল্পনা করা যায় না। ছবিতে মা’য়ের পাশে খালাম্মার ছবি। তিনি একজন রত্নগর্ভা মহিয়সি।

ছয় সাতজন ছেলে মেয়ের সবাইকে ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তুলেছেন। আমার ছোট বেলায় বিশেষ করে ১৯৭১ এর স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন সময়ে আমাকে খাওয়ানো গোসল করানো সবকিছুই তিনি করতেন। আর আমার প্রবাস জীবনের বিগত ত্রিশ বছর যার সহযোগীতা না পেলে আমার জীবন কতখানি কঠিন হয়ে যেত তা বলে বুঝানো যাবে না, তিনি হলেন আমার সহধর্মিনী নাসরিন।

ছবিতে আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী জাহানারা রয়েছেন যার অনেক অবদান রয়েছে আমাদের সংসারে। আমাদের সংসারে প্রথম সন্তান আমার ছোট ভাইয়ের কন্যা আমার অনেক আদরের তানিয়া। তানিয়া নিজের সংসার সামলিয়ে আমাদের নানা কাজে, সমস্যায় পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে। আমার শাশুড়ী, আমার স্ত্রীর ছোট বোন লুনা আমাদেরকে যথেষ্ট সাপোর্ট করার চেষ্টা করেন। আরো একজন নারীর কথা না বললেই নয়, তিনি আমার বন্ধু ও বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের সহপাঠী শেফা ভুঁইয়া। আমাদের কলেজের জন্যে, দরিদ্র অসহায় মানুষের জন্যে তাঁর ও তাঁর পরিবারের সাপোর্ট জাষ্ট অসাধারণ। সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা।

আজকের আন্তর্জাতিক নারী দিবসে আমার মা, খালাম্মা, স্ত্রী এবং আমার কন্যা কান্তা সহ সকল নারীদেরকে জানাই সালাম, শ্রদ্ধা ও অভিনন্দন। আজ শুধু একটি কথাই সবাইকে বিশেষ করে পুরুষদেরকে বলবো, নারীদেরকে সম্মান করুন, তাদেরকে কোনভাবেই অসম্মান করবেন না। কন্যা সন্তানদেরকে সমভাবে শিক্ষিত করে তুলুন যতটুকু আপনার পুত্র সন্তানকে করবেন। রাতে কিংবা দিনে নারী এবং পুরুষের নিরাপদ চলাচলের নিশ্চয়তা দেয়া রাষ্ট্র ও সমাজের দায়িত্ব।
স্কারবোরো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles