22.3 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

সত্যিই কি ইঞ্জেকশন দিয়ে ধীরে ধীরে হত্যা করা হবে ইমরান খানকে?

সত্যিই কি ইঞ্জেকশন দিয়ে ধীরে ধীরে হত্যা করা হবে ইমরান খানকে?
ইমরান খান সংগৃহীত ছবি

পাকিস্তানজুড়ে চলছে রাজনৈতিক অস্থিরতা। দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানে মঙ্গলবার ইসলামাবাদ হাইকোর্টের সামনে থেকে গ্রেফতার করা হয়। এরপরই উত্তাল হয়ে পড়ে গোটা দেশ। কেননা, তার দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) এর সমর্থকরা দেশটির রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছে।

এদিকে, এরই মধ্যে আট দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে ইমরান খানকে। গ্রেফতারের পর হেফাজতে থাকাকালীন শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন—বুধবার আদালতকে এমন অভিযোগ জানিয়েছিলেন ইমরান খান। কিন্তু তারপরও প্রাক্তন তাকে আট দিন হেফজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন পাকিস্তানের আদালত।
পাকিস্তানের দুর্নীতি দমন বিভাগ তথা ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরো (এনএবি) ইমরান খানকে ১০ দিনের হেফাজত চেয়েছিল। আদালত সেই আর্জি পুরোপুরি মঞ্জুর করেনি। তবে এনএবি’র হাতে আগামী ৮ দিনের জন্য তুলে দিয়েছে ইমরানকে।

- Advertisement -

তোশাখানা দুর্নীতি মামলায় অভিযুক্ত ইমরানকে মঙ্গলবার গ্রেফতার করার পরই রাতারাতি এক অজানা জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। বুধবার তাকে আদালতে পেশ করার নিয়ম থাকলেও প্রকাশ্যে আনা হয়নি ইমরানকে। তার জন্য বিশেষ রুদ্ধদ্বার আদালত বসেছিল পাকিস্তান পুলিশের সদর দফতরেই।

স্থানীয় সংবাদ সংস্থার খবরে জানা গেছে, আদালতে শুনানির সময় ইমরান খান বিচারককে জানান, হেফাজতে থাকাকালীন ২৪ ঘণ্টায় তার উপর অমানবিক অত্যাচার করা হয়েছে। এমনকি, ওয়াশরুমের প্রয়োজন পড়লেও তাকে যেতে দেওয়া হয়নি।

এ সময় তিনি বলেন, “আমি আমার চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলতে চাই।”

ইমরান খান বলেন, “মাকসুদ চাপরাসি (একজন পিয়ন) এর সাথে যা ঘটেছে তা আমার সাথে ঘটুক তা আমি চাই না। এরপর তিনি রমজান সুগার মিলস মামলায় জড়িত একজনের কথাও আদালতের কাছে তুলে ধরেন, যিনি গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে মারা যান।”

আদালতের কাছে অভিযোগ করে ইমরান খান বলেন, তারা হেফাজতে থাকাকালীন ইঞ্জেকশন দেয়, যা ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে নিয়ে যায়। এরপরই আদালত এ বিষয়ে রায় সংরক্ষণ করেন এবং আগামী ১৭ মে আবার ইমরান খানের বক্তব্য শোনার জন্য দিন ধার্য করেন।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles