22 C
Toronto
বুধবার, আগস্ট ১০, ২০২২

ফিরছেন টিটিসির যাত্রীরা

- Advertisement -
ফাইল ছবি

টিটিসির যাত্রী পরিবহন অব্যাহতভাবে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। তারপরও তা মহামারি-পূর্ববর্তী সময়ের তুলনায় অনেক নিচে আছে বলে নতুন এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, মে মাসে সপ্তাহে ৬২ লাখ যাত্রী টিটিসিতে ভ্রমণ করেছেন। মহামারি-পূর্ববর্তী সময়ের যা ৬১ শতাংশ। সব মিলিয়ে এপ্রিলের তুলনায় মে মাসে টিটিসির যাত্রী পরিবহন ৪ শতাংশীয় পয়েন্ট বেড়েছে এবং দুই বছরের বেশি সময় কোভিড-১৯ মহামারি শুরু হওয়ার পর যেকোনো একক মাসে সর্বোচ্চ যাত্রী পরিবহন।

টিটিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রিক লিয়ারি প্রতিবেদনে বলেছেন, যাত্রী পরিবহন ও পুনরুদ্ধারের দিকে আমরা ঘনিষ্ঠভাবে নজর রাখছি এবং আমাদের ধারণা সব মাধ্যমেই রাজস্ব বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। তবে বাজেটেড যাত্রী রাজস্বের যে মাত্রা বছরের দ্বিতীয়ার্ধে তা অর্জিত হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। কারণ, ভবিষ্যতে আবারও কোভিড-১৯ এর ঢেউ দেখা দিলে নিয়োগদাতাদের কর্মীদের অফিসে ফেরার শর্তে পরিবর্তন আনতে হতে পারে।

জানুয়ারিতে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ শুরু হলে যাত্রী পরিবহন মহামারি-পূর্ববর্তী অবস্থার ৩৭ শতাংশে নেমে আসে। তারপর থেকে ধারাবাহিকভাবে পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। টিটিসি কর্মকর্তারা বলছেন, টিটিসির যাত্রী পুনরুদ্ধারের কারণ বিশেষ অনুষ্ঠান ও উৎসবগুলো পুনরায় শুরু হওয়া, পোস্ট সেকেন্ডারি পর্যায়ে সশরীরে পাঠদান বেড়ে যাওয়া এবং পর্যায়ক্রমে কর্মীদের অফিসে ফেরা।
তবে উপাত্ত বলছে, টিটিসির যাত্রীরা মহামারি শুরু হওয়ার আগের চেয়ে অনেক কম ট্রানজিট নিচ্ছেন। টিটিসির সার্বিক যাত্রী পরিবহন মহামারি-পূর্ববর্তী সময়ের ৬১ শতাংশে ফিরলেও পাস বিক্রি এখন মহামারি-পূর্ববর্তী অবস্থার ৪০ শতাংশে আটকে আছে।

টিটিসি বলছে, নিয়মিত যাতায়াতকারী অর্থাৎ যারা সপ্তাহে অন্তত ৯ বার টিটিসি ব্যবহার করেন তারা এখনও মোট যাত্রীর ১৯ শতাংশের মতো। মহামারি-পূর্ববর্তী সময়ে তারা ছিলেন মোট যাত্রীর ৩২ শতাংশ।

এদিকে ২০২২ সালে এখন পর্যন্ত ফেয়া র বক্সের মাধ্যমে ২৪ কোটি ৮০ লাখ ডলার রাজস্ব সংগৃহীত হয়েছে। প্রত্যাশার চেয়ে যা ৫ কোটি ৮০ লাখ ডলার বেশি।
This article was written by Sohely Ahmed Sweety as part of the LJI.

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles