22.7 C
Toronto
বুধবার, আগস্ট ১৭, ২০২২

বাধ্যবাধকতা প্রত্যাহারের পরও পরতে হচ্ছে মাস্ক

- Advertisement -
অন্টারিওর সায়েন্স অ্যাডভাইজরি টেবিলের নতুন বৈজ্ঞানিক পরিচালক ড. ফাহাদ রাজাক

২০২০ সালের অক্টোবরে প্রদেশজুড়ে চালু করা বাধ্যতামূলত মাস্ক পরিধানের বিধান কার্যত উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা স্থান থেকেও প্রত্যাহার করা হয়েছে। কিন্তু বাধ্যবাধকতা না থাকার অর্থ এই নয় যে, আপনি তা ছুড়ে ফেলতে পারেন।

গ্রেটার টরন্টো ও হ্যামিল্টন এরিয়ার প্রত্যেক হাসপাতালসহ একাধিক স্থানে আপাতত মাস্ক পরা অব্যাহত রাখতে হচ্ছে। প্রয়োজন নেই বলা হলেও টিটিসি তাদের যাত্রীদের মাস্ক পরিধান অব্যাহত রাখার পরামর্শ দেিয়ছে।

অন্টারিওর সায়েন্স অ্যাডভাইজরি টেবিলের নতুন বৈজ্ঞানিক পরিচালক ড. ফাহাদ রাজাকের সঙ্গে সসম্প্রতি এ নিয়ে কথা বলেছে সিপি২৪। তিনি বলেছেন, জনগণ মাস্ক পরার সুফল এখনও পরিস্কারভাবে পাচ্ছে। যদি উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ স্থান হয় তাহলে সুফলটা আরও বেশি। সার্জিক্যাল মাস্কের তুলনায় কাপড়ের মাস্কের সুফল কম। সুতরাং, নীল ও সাদ রঙের তিন স্তরের যে মাস্কের ডিজাইন করা হয়েছে সেগুলোই পরতে হবে। এর চেয়েও বেশি সুরক্ষা দেবে এন৯৫। তবে দীর্ঘ সময় তা পরে থাকা কষ্টকর। তবে হ্যাঁ, অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। এটা আপনাকে সুরক্ষা তো দেবেই, এমনকি আপনার চারপাশের মানুষদেরকেও সুরক্ষিত রাখবে। আসলে আপনার আশপাশের লোকজন মাস্ক না পরলে সেটা গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। আর সবাই যদি মাস্ক পরেন তাহলে প্রত্যেকে ব্যক্তিকেই তা বাড়তি সুরক্ষা দেবে। সুতরাং এটাকে সুরক্ষার একটি স্তর হিসেবে বিবেচনা করুন। আপনি যদি মাস্ক পরেন তাহলে অবশ্যই আপনি আপনাকে বাড়তি সুরক্ষা দিচ্ছেন। আপনার চারপাশের সবাই যদি মাস্ক পরে তাহলে সুরক্ষার মাত্রাটা অন্য উচ্চতায় পৌঁছে যায়।

এখন প্রশ্ন হলো কখন এবং কোথায় মাস্ক পরিধান করবেন। ড. ফাহাদ রাজাক বলেন, সেক্ষেত্রে আমার পরামর্শ হবে, কমিউনিটিতে আমরা এখন উচ্চ মাত্রায় সংক্রমণের মধ্যে আছি। তবে এটা ঠিক যে আমরা সংক্রমণের চূড়া পেরিয়ে এসেছি। কয়েক মাস আগে সংক্রমণ যেখানে ছিল এখন সেখানে নেই। তবে অনেক সংক্রমণ হচ্ছে এবং অনেকেই জানেন তাদের পরিচিত কেউ না কেউ কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সংক্রমিত হয়েছেন। সুতরাং আপনি যদি কোনো পাবলিক সেটিংয়ে থাকেন বিশেষ করে ইনডোরে তাহলে ধরে নিতে হবে যে আপনি সংক্রমণের ঝুঁকিতে আছেন। তাহলে আপনাকে মাস্ক পরতে হবে। আমিও সেটাই করছি। আমার বেশিরভাগ সহকর্মীও তাই করছেন। আমি মনে করি এখনও এটিই মহামারির এই পর্যায়টি মোকাবেলা করার সবচেয়ে বুদ্ধিমান পদ্ধতি। যদিও পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে এবং সেটা চমৎকার।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles