24.8 C
Toronto
শুক্রবার, জুলাই ১, ২০২২

কানাডায় নতুন মাদক

- Advertisement -
কানাডায় নতুন মাদক
ছবি/কানাডিয়ান সেন্টার অন সাবস্ট্যান্স ইউজ অ্যান্ড অ্যাডিকশন

কানাডার অনিয়ন্ত্রিত ড্রাগ সরবরাহে নতুন ধরনের ওপিয়ডের ব্যবহার দ্রুত বাড়ছে বলে জানিয়েছে কানাডিয়ান সেন্টার অন সাবস্ট্যান্স ইউজ অ্যান্ড অ্যাডিকশন। ফেন্টানাইলের চেয়েও বেশি শক্তিশালী নিটাজেনেস নামের মাদকটির উপস্থিতি বেশি করে দেখা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

মাদকটির উপস্থিতি বেনজোডায়াজেপিন্সের সঙ্গে একইসঙ্গে বেড়েছে। বেনজোডায়াজেপিন্স সাধারণত ঘুম ও ব্যথানাশক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

হেলথ কানাডা ২০২১ সালে যেসব নমুনা পরীক্ষা করে তার এক শতাংশেরও কম নমুনায় এ ধরনের সাবস্ট্যান্স শনাক্ত হয়। তবে ২০২০ সালের শনাক্ত নমুনার চেয়ে এটা চারগুন বেশি।

সেন্টারের গবেষণা ও নীতি বিশ্লেষক সারাহ কোনেফাল বলেন, কোনো বাড়ি আগুনে ভস্মিভুত হতে থাকলে সেই সময় বের করে আনা অর্থে এই সতর্কতা দেওয়া হয়নি। বরং আগুনের শিখা দেখামাত্রই সতর্ক করার অংশ হিসেবে এই সতর্কতা দেওয়া হয়েছে। তবে নিটাজেনেসের উপস্থিতি কম মনে হতে পারে। কারণ, কিছু ড্রাগ পরীক্ষা সেবার কাছে এ ধরনের সাবসট্যান্সের উপস্থিতি শনাক্ত করার মতো ব্যবস্থা নেই। উদ্বেগের বিষয় হলো আমরা কেবল হিমশৈলের সূচাগ্রভাগই কেবল দেখতে পাচ্ছি।

কানাডায় ২০১৩ সালে প্রথমবারের মতো যখন ফেনটানাইল শনাক্ত হয় তখনও সেন্টারের তরফ থেকে এ ধরনের সতর্কতা দেওয়া হয়েছিল। ২০১৫ সাল থেকে কানাডায় ফেনটানাইলের সরবরাহ বাড়তে থাকে। অতিমাত্রায় মাদক সেবনের কারণে মৃত্যুহার বেড়ে যাওয়ায় ব্রিটিশ কলাম্বিয়া ২০১৬ সালে স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা জারি করে। এরপর জাতীয় স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়।

হেলথ কানাডার উপাত্তের ভিত্তিতে নিটাজেনেসের উপস্থিতি বেড়ে যাওয়ার ওপর নজর রাখছে সেন্টা। হেলথ কানাডা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জব্দ করা মাদক বিশ্লেষণ করে থাকে। ২০২১ সালে নিটাজেনেসের বেশিরভাগ নমুনাই এসেছে অন্টারিও থেকে। এরপর এক-চতুর্থাংশ নমুনা এসেছে কুইবেক থেকে।

টরন্টোর ড্রাগ চেকিং সার্ভিসের প্রধান কারেন ম্যাকডোনাল্ড বলেন, নগরীতে নিটাজেনেসের সরবরাহ অপ্রত্যাশিতভাবে বাড়তে দেখা যাচ্ছে। ২০২১ সালে যখন নিটাজেনেস প্রথম শনাক্ত হয় তখন এটা ছিল ফেনটানাইলের এক শতাংশেরও কম। কিন্তু ওই বছরের শেষ দিকে তা ফেনটানাইলের নমুনার ১৫ থেকে ২০ শতাংশে পৌঁছে যায় এবং ২০২২ সালে তা ২০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।

২০১৬ সাল থেকে ৯ হাজারের বেশি কানাডিয়ানের ওপিয়ড-সংক্রান্ত কারণে মৃত্যু হয়েছে বলে পাবলিক হেলথ এজেন্সি অব কানাডা জানিয়েছে। এজেন্সির মুখপাত্র মারিস ডুরেটে বলেন, ওভারডোজের কারণে সিংহভাগ মৃত্যুর কারণ ফেনটানাইল সাবস্ট্যান্স সমৃদ্ধ অবৈধ মাদকের সরবরাহ। কানাডায় নিটাজেনেসের উপস্থিতি বৃদ্ধির বিষয়ে হেলথ কানাডা সতর্ক আছে এবং এ সংক্রান্ত তথ্যগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা হচ্ছে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles