21.3 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪

বলা না বলা

বলা না বলা

এখন আর ইচ্ছে হয় না পথের দিকে তাকাতে। ভয় লাগে বড্ড ভয়। পেছনের পথটা দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে আর ছোট হয়ে যাচ্ছে সামনের পথটুকু। ছোট হতে হতে মিলিয়ে যাবে সামনের পথটুকু কোন এক অজানা ঠিকানাতে। তখন কি হবে আমার পথের ঠিকানা জানিনা। কেউতো সে ঠিকানা থেকে ফিরে এসে বলেনি কেমন পথের শেষের ঠিকানাটি। সে অজানা পথের ঠিকানার চিন্তা আমার দেহ মনে পরগাছার মতো শক্ত হয়ে জড়িয়ে আছে। তাকে যে কোন ভাবেই ছাড়াতে পারছি না আমার দেহ মন থেকে।

- Advertisement -

আমার বন্ধুরা কেউ এসব নিয়ে ভাবে না। ওদের জীবনে অনেক আশা অনেক স্বপ্ন অনেক পরিকল্পনা। আমি যেনো সব কিছু হারিয়ে বসে আছি। যখন জীবনে কোন আশা আকাংখা থাকে না তখন মানুষের স্বপ্নগুলোও কোথায় যেনো উড়ে চলে যায়। শুধু ভাবি কেনো এখনি ফুরিয়ে যাবার কথা ভাবছি? এখনতো অনেক কিছু করতে পারি, স্বপ্ন দেখতে পারি, সংগ্রাম করতে পারি, আশায় বুক বাঁধতে পারি। সমুদ্রের ঢেউয়ের উচ্ছলতার মতো উছলে পরতে পারি। পাখির মতো আনন্দে দুটি পাখা মেলে আনন্দে উড়ে বেড়াতে পারি। নীল আকাশে সাদা মেঘের খেলা দেখে দু হাত বাড়িয়ে বলতে পারি আমি কত ভাগ্যবান তোমার নীচে আমি বাস করতে পারছি। রবি ঠাকুরের গানের কথার সাথে নিজেকে মিলিয়ে অনেক কিছু ভাবতে পারি। কিন্তু আমাকে দিয়ে কিছুই হচ্ছে না। সারাক্ষণ একটা অজানা ভয় আমাকে চেপে আছে। মাঝে মাঝেই দুঃস্বপ্ন আমার ঘুম ভাঙ্গিয়ে দিচ্ছে। এ কেমন জীবন শুরু হোল আমার?

সব আছে সব কিছু আছে তারপরও মনে হয় কিছু নেই। যা চাই তা যেনো পাই না। আসলে চাওয়া না পাওয়া নিয়েই মানুষের জীবন।

মাঝে মাঝে একটা উদ্ভট চিন্তা মাথায় আসে। মনে হয় সব কিছু ছেড়ে কোন এক পাহাড়ে নির্জন ঘর বানিয়ে থাকি। যেখানে কেউ আমাকে দেখবে না। আমাকে অহেতুক বিরক্ত করবে না। আমি শুধু থাকবো আমার ভাবনাগুলো নিয়ে। ভোরের বেলা ভোরের নরম বাতাসে গা ভিজাবো। সূর্য উদয়ের দৃশ্য আমার জীবনে খুব বেশি দেখা হয়নি তখন পাহাড়ের উপরে বসে সে দৃশ্য দেখে মুগ্ধ হবো। সন্ধ্যায় সূর্যের অস্ত যাবার অপরুপ দৃশ্য আমাকে অনেক ভাবনা থেকে মুক্তি দেবে।

জ্যোৎস্না রাতে চাঁদের নীচে বসে চাঁদকে শোনাবো আমার কথা আমার কবিতা। পাহাড়ের গা ঘেশে বনফুলের ঝার থেকে ফুল তুলে এনে আমার কুড়ে ঘরটি সাজাবো। সকাল সন্ধ্যা পাখির গানের সাথে সুর মিলিয়ে গান করবো। আর শুধু লিখতে থাকবো আমার ভাবনাগুলো। আমার জীবনের সুখ দুঃখের অভিজ্ঞতাগুলো।

জীবনে কতো মানুষের সাথে সখ্যতা হোল। কতো মানুষ হারিয়ে গেলো। কতো মানুষ আবার রয়ে গেলো। আবার হারিয়ে যাওয়া কিছু কিছু মানুষও ফিরে এসেছে জীবনে। কিছু প্রিয় বন্ধু পৃথিবীর কোন কোন প্রান্তে বাস করে তাও জানি না। যদিও সামাজিক মাধ্যম গুলো মানুষের কাছে মানুষকে নিয়ে আসার ব্যাপারে দারুন ভুমিকা পালন করছে।

আমি জানি আমি বুঝি মানুষ সামাজিক জীব। নিঃসঙ্গতা মানুষকে অসুস্থ করে তোলে। তারপরও কেনো যে আমার এই একা থাকার ভাবনা গুলো আসে বুঝি না। জীবনের ভাবনাগুলো এক সময় ছিলো একে বারে অন্য রকম আর এখন পুরুটাই উল্টো। সময় মানুষকে কতোভাবে কতো দিকে টেনে নিয়ে যায়। আমি হয়ে পরেছি সময়ের দাস। সময় আমাকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে এপ্রান্ত থেকে সে প্রান্ত।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles