13.7 C
Toronto
মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৬, ২০২৪

দাঁড়িয়ে থেকে প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীর বিয়ে দিলেন যুবক!

দাঁড়িয়ে থেকে প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীর বিয়ে দিলেন যুবক!
সংগৃহীত ছবি

গতকাল শনিবার নিখোঁজ হন নাড়ুগোপাল মণ্ডলের স্ত্রী স্মৃতি। পরে জানা যায় বাল্যপ্রেমিক কৃষ্ণেন্দু মণ্ডলের সঙ্গে পালিয়েছেন তিনি। এরপর নিজে দাঁড়িয়ে থেকে কৃষ্ণেন্দুর সঙ্গে স্মৃতির বিয়ে দেন স্বামী নাড়ুগোপাল। এমনটাই ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমে। চোখের জলে স্ত্রীকে বিদায় জানালেও প্রেমিকের সঙ্গে স্মৃতি যেন সুখী হয় সেই অনুরোধও করলেন। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতের গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন।

জানা গেছে, নাড়ুগোপাল মণ্ডলের সঙ্গে পাঁচ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল স্মৃতির। তাঁদের তিন বছরের একটি সন্তান আছে। কয়েক দিন আগে পুরোনো শ্বশুর বাড়ির সঙ্গে সম্পর্ক শেষ করে প্রেমিকের কাছে চলে যান স্মৃতি। থানায় নিখোঁজের মামলাও করেন স্বামী। চারদিন পর স্মৃতি জানান, তিনি আর স্বামীর সঙ্গে থাকতে চান না। শুক্রবার মল্লারপুর থানায় তিনি জানান, প্রেমিক কৃষ্ণেন্দুর সঙ্গেই বাকি জীবন কাটাবেন।

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে খবর,পঞ্চম শ্রেণি থেকে সহপাঠী কৃষ্ণেন্দুর সঙ্গে স্মৃতির প্রেমের সম্পর্ক। কিন্তু পরিবারের চাপে তাঁদের চারহাত এক হয়নি। স্মৃতির বিয়ের পরেও দুজনের মধ্যে ফোনে যোগাযোগ ছিল। কানাচি গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য সত্যবান মণ্ডল জানান, এর আগেও একবার বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন স্মৃতি। সেবার বুঝিয়ে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়। এবার আর তিনি কিছুতেই ফিরতে রাজি নয়। তাই প্রেমিকের কাছেই তাঁকে ফিরিয়ে দিল স্বামী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পঞ্চম শ্রেণি থেকে সহপাঠী কৃষ্ণেন্দুর সঙ্গে স্মৃতির প্রেম। কিন্তু পরিবারের চাপে তাঁদের চারহাত এক হয়নি। স্মৃতির বিয়ের পরও দুজনের মধ্যে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ ছিল। এর আগেও একবার বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন স্মৃতি। সেবার বুঝিয়ে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়। এবার আর তিনি কিছুতেই ফিরতে রাজি নয়। অবশেষে প্রেমিকের কাছেই তাঁকে ফিরিয়ে দিলেন স্বামী নাড়ুগোপাল।

নাড়ুগোপাল বলেন, ‘আমার জীবনে যত কষ্টই আসুক, প্রেম সত্য হোক। আমাদের ছেলে আমার কাছে থাকবে। আমরা দুজনে স্বেচ্ছায় বিচ্ছেদপত্র লিখে নিয়েছি।’ স্মৃতি বলেন, ‘আমি বাকি জীবন প্রেমিকের সঙ্গে থাকতে চাই। আমিই স্বামীর কাছে বিচ্ছেদপত্র চেয়ে নিলাম।’

প্রেমিকা স্মৃতিকে মল্লেশ্বরের কালীতলায় সাবেক স্বামীর সামনেই সিঁদুর পড়িয়ে দেন প্রেমিক কৃষ্ণেন্দু। তিনি জানান, ‘দীর্ঘদিন ধরে আমারা দুজন দুজনকে ভালোবাসি। ওর সঙ্গে সারাজীবন কাটাতে চায়। আমি ওঁর স্বামীর কাছে কৃতজ্ঞ।’

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles