6.6 C
Toronto
রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০২৪

কানাডিয়ানদের গ্রোসারি কেনাকাটার অভ্যাস চালিত করছে ছাড়

কানাডিয়ানদের গ্রোসারি কেনাকাটার অভ্যাস চালিত করছে ছাড়
ভালো পয়েন্ট পাওয়ার লক্ষ্যে প্রায় দুই তৃতীয়াংশ কানাডিয়ান গত বছর তাদের প্রাথমিক গ্রোসারি স্টোর পরিবর্তন করেছেন

ভালো পয়েন্ট পাওয়ার লক্ষ্যে প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ কানাডিয়ান গত বছর তাদের প্রাথমিক গ্রোসারি স্টোর পরিবর্তন করেছেন। ডালহৌসি ইউনিভার্সিটির এগ্রি-ফুড অ্যানালাইটিকস ল্যাব ও মার্কেটিং ইনসাইট ফার্ম ক্যাডল পরিচালিত নতুন এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, প্রায় ৩০ কানাডিয়ানের তাদের গ্রোসারি স্টোর নির্বাচনের ভিত্তি ছিল স্টোরে দেওয়া ছাড় ও প্রমোশন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় ৬০ শতাংশ কানাডিয়ান নিরবচ্ছিন্নভাবে ছাড়ে বিক্রি করা খাদ্যপণ্যের খোঁজে রয়েছেন। মেয়াদ শেষ হতে যাওয়া পণ্যের ওপর ছাড় অথবা ক্লিয়ারেন্স সেলের সামগ্রী এক্ষেত্রে তাদের পছন্দ।

- Advertisement -

এগ্রি-ফুড অ্যানালাইটিকস ল্যাবের পরিচালক সিলভেইন চার্লেবোয়িস বলেন, পরিবর্তনশীল বাজারে প্রতিযোগিতায় থাকতে রিটেইলারদের ছাড় দেওয়ার উদ্যোগকে অগ্রাধিকার দেওয়া যে গুরুত্বপূর্ণ সেই বিষয়টি গবেষণায় গুরুত্ব পেয়েছে।

ক্যাডলের প্ল্যাটফরম ব্যবহার করে পরিচালিত সমীক্ষার তথ্য অনুযায়ী, ছাড়ের বিষয়ে জানার জন্য ক্রেতাদের কাছে সবচেয়ে সাধারণ উপায় হলো ফ্লায়ার। এর পরেই রয়েছে মোবাইল অ্যাপ ও ইন-স্টোর সাইন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্টোর নির্বাচন ও পণ্য ক্রয়ে ছাড় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। ছাড়ের হার এবং লয়্যালটি পয়েন্ট তাদেরকে বিশেষভাবে আকর্ষণীয় করে তুলছে। ফলে গ্রোসারি স্টোরগুলো এ ধরনের প্রমোশনে অগ্রাধিকার দিয়ে মুনাফা ঘরে তুলছে।

ছাড়কৃত মূল্যে খাদ্যপণ্য ক্রয়ের ক্ষেত্রে কানাডিয়ানদের কাছে প্রধান গন্তব্য লবল মালিকানাধীন বিভিন্ন স্টোর। এর পরেই রয়েছে ওয়ালমার্ট ও কস্টকো।

প্রতিবেদন বলছে, তাজা পণ্য হচ্ছে ছাকৃত মূল্যে সবচেয়ে বেশি কেনা পণ্য। এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে মাংস দিয়ে তৈরি খাদ্যপণ্য, প্যাকেট ও ক্যানজাত পণ্য, বেকড পণ্য এবং দুগ্ধজাত পণ্য।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ফ্ল্যাশফুড অথবা টু গুড টু গো-এর মতো ফুড-রেসকিউ অ্যাপগুলোর জনপ্রিয়তা ক্রমেই বাড়ছে। প্রায় ৫৮ শতাংশ ক্রেতা কখনোই এগুলো ব্যবহারের চেষ্টা করেননি। তবে যারা অ্যাপগুলো ব্যবহার করেছেন তাদের মধ্যে ৯৫ দশমিক ১ শতাংশই বলেছেন, অন্যদেরকেও অ্যাপগুলো ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন তারা। অ্যাপগুলো ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রাথমিক প্রণোদনা ছিল অর্থ সাশ্রয়।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles