22.1 C
Toronto
শুক্রবার, জুলাই ১২, ২০২৪

তোয়ালেতে রক্ত, সন্তান খুনে অভিযুক্ত মা বললেন ‘ঋতুস্রাবের দাগ’

তোয়ালেতে রক্ত, সন্তান খুনে অভিযুক্ত মা বললেন ‘ঋতুস্রাবের দাগ’
<br >সন্তান খুনে অভিযুক্ত সূচনা শেঠ

শুধু একটি ছুরি, একটি তোয়ালে আর একটি বালিশ। ভারতের উত্তর গোয়ার ক্যান্ডোলিমের একটি হোটেল থেকে পাওয়া এই কয়েকটি জিনিসের সূত্র ধরেই সন্তান খুনে অভিযুক্ত বেঙ্গালুরুর মাইন্ডফুল মাইন্ডফুল এআই ল্যাবের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সূচনা শেঠের কাছে পৌঁছাতে পেরেছে পুলিশ!

জানা গেছে, ক্যান্ডোলিম বিচে যে হোটেলে ছেলেকে নিয়ে উঠেছিলেন সূচনা, সেই ঘর থেকেই ছুরি, তোয়ালে আর বালিশ উদ্ধার করে পুলিশ। সূচনা ওই হোটেলে উঠেছিলেন গত ৬ জানুয়ারি। হোটেল ছেড়েছিলেন ৮ জানুয়ারি। ছাড়ার পর হোটেলের এক কর্মী ওই ঘরে গিয়ে রক্তের দাগ লেগে থাকা তোয়ালে উদ্ধার করেন।

- Advertisement -

রাত ১টার দিকে সূচনা তড়িঘড়ি করে হোটেল ছাড়ার সময় কর্মীদের সন্দেহ হয়েছিল। এরপর ঘর পরিষ্কারের সময় তোয়ালেতে রক্তের দাগ দেখে সেই সন্দেহ তীব্র হয়। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। জানানো হয়, হোটেল বুক করার সময় সূচনার সঙ্গে তার ছোট্ট ছেলে ছিল। কিন্তু বের হওয়ার সময় তাকে দেখেননি হোটেল কর্মীরা।

সূচনার হাতে থাকা ভারী ব্যাগের কথাও হোটেল কর্মীরাই জানিয়েছিলেন। পুলিশ সূত্রেই জানা গেছে, তদন্তকারীরা সূচনার সঙ্গে যোগাযোগ করে তোয়ালেতে রক্তের দাগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঋতুস্রাবের কারণেই তোয়ালেতে ওই দাগ লেগেছে।

তদন্তকারীরা জানিয়েছে, হোটেল কক্ষ থেকে ছোট-বড় দুটি কাশির সিরাপের খালি বোতল উদ্ধার হয়েছে। ছেলের ময়নাতদন্ত করেছেন যিনি, সেই চিকিৎসক জানিয়েছেন সম্ভবত কাশির ওষুধ বেশি পরিমাণে খাইয়ে ছেলেকে অচেতন করে নাকে-মুখে বালিশ, তোয়ালে চাপা দিয়ে বা তার জাতীয় কিছু গলায় পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে।

ছেলের দিক থেকে প্রতিরোধের কোনো চেষ্টাই চোখে পড়েনি চিকিৎসকের। তারপরে সম্ভবত হাতের শিরা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টাও করেছিলেন সূচনা। কিন্তু পরে সিদ্ধান্ত বদলান। সেখান থেকে তার হাতে ক্ষত হয়ে থাকতে পারে। তবে খুনের কথা এখনও স্বীকার করেননি গোয়ার মাপুসা জেলে বন্দি মা। বার বার বলছেন, ঘুম থেকে উঠে দেখতে পান ছেলে মারা গেছে।

কর্নাটকে ছেলের মরদেহসহ ধরা পড়া সূচনাকে ট্রানজিট রিমান্ডে গোয়ায় আনা হয়েছে। ছয় দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে তাকে। পুলিশ সূত্রে খবর, বেঙ্গালুরুতে যে সংস্থার সিইও সূচনা, তার স্থায়ী কোনো অফিসের সন্ধান মেলেনি। সেখানকার বহু স্টার্ট আপ সংস্থার মতো জায়গা ভাগ করে সংস্থাটির কাজকর্ম চালানো হত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সূচনা কী কারণে ছেলেকে হত্যা করলেন তা এখনও স্পষ্ট নয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ-১৮ বলছে, ধারণা করা হচ্ছে এর সঙ্গে সূচনার সম্ভাব্য বিবাহবিচ্ছেদের সম্পর্ক আছে। সূচনার স্বামী ভেঙ্কট রমন বর্তমানে ইন্দোনেশিয়ায় আছেন, খবর পেয়েই দেশে ফিরছেন তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles