27.5 C
Toronto
মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০২৪

দুই ভূবন..

দুই ভূবন..
জীবন এক বিরাট যন্ত্রণার নাম জীবনে কিছুই সহজে পাওয়া যায় না


জীবন এক কঠিন বাস্তবতা। জীবন এক বিরাট যন্ত্রণার নাম। জীবনে কিছুই সহজে পাওয়া যায় না। আপাতদৃষ্টিতে অনেক কিছু সহজ মনে হলেও আসলে কিছুই সহজ না। যাকে আপন মনে হয়, যাকে একদা আপন ভেবেছিলাম, আপন ছিলও সেও কেমন পর হয়ে যায়, পর করে দেয়, দূরের হয়ে যায়। সময়ের পরিক্রমায় কখন যেনো কাছের মানুষ দূরের হয়ে যায়, দূরে সরিয়ে দেয়। এক অনতিক্রম দূরত্ব তৈরী হয়। কিছুতেই তীরে ফেরা যায় না। প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির মধ্যে বিরাট এক ব্যবধান তৈরী হয়। জীবনের এই রহস্য কিছুতেই উদঘাটন করা যায় না। জীবনের ঘটমান বাস্তবতা তাই খুবই অনিশ্চিত, খুবই নিষ্ঠুর। জীবনের সম্পর্কগুলোও খুউব অনিশ্চিত আর ভঙ্গুর। সামান্য ভুলেও অনেককিছু এলোমেলো হয়ে যায়। ভুল বোঝাবুঝি তৈরী হয়, সম্পর্ক ভেঙ্গে যায়। একসাথে পথচলা হয়ে পড়ে কঠিন। কিছুতেই আর একবিন্দুতে মিলতে পারে না। রেললাইন বহে সমান্তরাল টাইপ। মানুষের মনোজগতিক এইসব জটিল বিষয়গুলো নিয়ে অনেক ভেবেছি কিন্তু কিছুতেই জট খুলতে পারিনি। আর সেটা হচ্ছে সম্পর্কের জট।


এক ছাদের নিচে বছরের পর বছর বাস করার পরও কেউ কারো আপন হয় না। কেউ কাউকে বোঝে না। তখন না থাকে শেয়ারিং, না সম্মান, থাকে শুধু একধরণের জীবন যাপন। সেখানে নাই কোনো আবেগ, নাই আশ্লেষ, নাই প্রেম। কোথায় যেনো একটা দূরত্ব রয়েই যায়। চল্লিশ পঞ্চাশ বছরের বন্ধুত্বের সম্পর্কও সামান্য কারণে ভেঙ্গে গুড়িয়ে যায়। আত্মঅহমিকা আর ইগো পরস্পরকে দূরে সরিয়ে দেয়। আত্মীয়তার সম্পর্ক ভেঙ্গে যায় তুচ্ছ স্বার্থের কারণে। ভাই আর ভাই থাকে না, বোন থাকে না বোন, মা বাবার সাথেও দূরত্ব রচিত হয়। একদা আপন ছিল এমন মানুষ যখন আর আপন থাকে না, মুখ দেখোদেখি বন্ধ হয়ে যায়, এড়িয়ে চলতে হয় একদা প্রিয় ছিল এমন মানুষকে, তার চেয়ে কষ্টের আর কিছু নাই। প্রতিদিন যাকে না দেখলে দিনটাই অপূর্ণ রয়ে যায়, কথা না বললে মন কাঁদে, না দেখলে অসম্পূর্ণ থাকে দিবস রজনী, তার সাথেও বিচ্ছেদ হয়ে যায়। ঘৃণার চোখে দেখি তাঁকে। তার নামও মুখে আনি না। চেহারা দেখতে চাই না। অদ্ভুত এই পৃথিবী।

- Advertisement -


জীবনের এইসব জটিল বিষয়গুলো ভুলে আমি নির্ভার হয়ে বাঁচার চেষ্টা করছি। পৃথিবীর যাবতীয় কূটিল বিষয়গুলো নিয়ে ভাবতে ইচ্ছে করছে না। লোভ লালসা, প্রত্যাশা, চাওয়া পাওয়া নিয়ে প্রতিদিন মানুষের যে লড়াই তাতে আমি ক্লান্ত, বিধ্বস্ত। আমি বুঝেছি একসাথে অনেককিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারব না, একসাথে অনেকের মন যুগিয়ে চলতে পারব না, সবাইকে খুশীও করতে পারব না। সবাইকে খুশী করা যায় না। সবাইকে খুশী করতে গেলে কাউকেই খুশী করা হয় না। জীবনের গন্ডি আমার সবসময়ই ছোট ছিল, এখন আরো ছোট করে আনার চেষ্টা করছি। অনেকটা গর্তজীবি বলা যায়। আমি জানি অনেক কিছু আমার হাতে নাই, আমার নিয়ন্ত্রণে নাই। এমন কিছু অনাকাংখিত ব্যাপার আছে, অপ্রত্যাশিত আঘাত আছে যা আমি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবনা। তাই যাই ঘটুক তার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। এটাই জীবন। জীবনে নিরবচ্ছিন্ন যেমন আনন্দ নাই, দুঃখও নাই। সুখ দুঃখ মুদ্রার এপিঠ আর ওপিঠ। সবকিছুর জন্যই তৈরী থাকাই সভ্যতা। তবে যাই ঘটুক সত্যরে ভালবেসেই বেঁচে থাকতে চাই। যতই প্রতিকূলতা থাক, যতই অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটুক ভালবাসা যেনো বেঁচে থাকে। ঘৃণা কিছুই দিতে পারে না। আসুন ভালবাসায় বাঁচি।

টরন্টো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles