11.3 C
Toronto
শনিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২২

খাদ্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে গ্রোসারি খাতের গবেষণা শুরু

খাদ্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে গ্রোসারি খাতের গবেষণা শুরু
অতি কেন্দ্রীভূত গ্রোসারি খাত খাদ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছে কিনা সে ব্যাপারে গবেষণা শুরু করেছে কানাডার কম্পিটিশন ব্যুরো

অতি কেন্দ্রীভূত গ্রোসারি খাত খাদ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছে কিনা সে ব্যাপারে গবেষণা শুরু করেছে কানাডার কম্পিটিশন ব্যুরো। কানাডিয়ান সেন্টার ফর পলিসি অল্টারনেটিভের জ্যেষ্ঠ অর্থনীতিবিদ ডেভিড ম্যাকডোনাল্ড বলেন, মূল্যবৃদ্ধিতে খাদ্যপণ্য গ্যাসোলিনের পরেই ছিল। কিন্তু এখন মুদিপণ্য মূল্যস্ফীতির অন্যতম চালক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

কম্পিটিশন ব্যুরো বলেছে, প্রতিযোগিতামূলক ডাইনামিকসের পরিবর্তনের সঙ্গে মুদিপণ্যের কতটা মূল্যবৃদ্ধি সম্পর্কিদ গবেষণায় তা খুঁজে দেখা হবে। ৪০ বছরের মধ্যে মুদিপণ্যের দাম সবচেয়ে দ্রুত বাড়ছে।

- Advertisement -

খাদ্যের দাম ১৯৮১ সালের পর সবচেয়ে দ্রুত বেড়েছে। স্ট্যাটিস্টিকস কানাডার তথ অনুযায়ী, সেপ্টেম্বরে কানাডায় খাদ্যের দাম বেড়েছে এক বছর আগের একই সময়ের তুলনায় ১১ দশমিক ৪ শতাংশ। আর সার্বিক মূলস্ফীতির হার দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৯ শতাংশ।

মূল্যস্ফীতি জুনের ৮ দশমিক ১ শতাংশ থেকে কমে এলেও খাদ্যের মূল্যবৃদ্ধি সার্বিক ভোক্তা মূলসূচকের ওপরে রয়েছে এবং তা বাড়ছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে কানাডার মুদি ব্যবসায়ীরা এর আগে এই পরামর্শ দিয়েছিলেন যে, খুচরা বিক্রয় খাত তাদের দক্ষতা বাড়িয়ে ভোক্তাদের বাড়তি মূল্য সুবিধা দিতে পারে। কিন্তু মুদি শিল্পের কিছু পর্যবেক্ষকের যুক্তি, দক্ষতার বৃদ্ধিল অর্থ আরও সাশ্রয়ী খাদ্য নয়।

ম্যাকডোনাল্ড বলেন, কনসলিডেশনের কারণে দক্ষতার উন্নতি হতে পারে। কিন্তু দক্ষতা বৃদ্ধির অর্থ খাদ্যের মূল্য কমা নয়। অনেক গ্রোসারি চেইন এবং খাদ্য ও পানীয় কোম্পানি মহামারির সময় রেকর্ড মুনাফা করেছে এবং তাদের এই মুনাফা বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। এটা ঠিক যে এসব কোম্পানির ইনপুট খরচ বাড়ছে। একই সঙ্গে মুনাফাও বাড়ছে।

কম্পিটিশন ব্যুরো বলেছে, মুদিপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে সরকারের লড়াইটা কেমন হতে পারে সেটি তারা খুঁজে বের করতে সক্ষম হবে বলে তারা আশাবাদী। এটা হতে পারে প্রতিযোগিতা বৃদ্ধির মধ্য দিয়ে। গ্রোসারি খাত অনেক বেশি কেন্দ্রীভূত। অনেক কানাডিয়ান মূলত তিনটি কোম্পানি থেকেই পণ্য কিনে থাকে বেশি। এগুলো হলো লবল, মেট্রো ও সবিস।

ইউনিভার্সিটি অব টরন্টোর রটম্যান স্কুল অব ম্যানেজমেন্টের মার্কেটিংয়ের অধ্যাপক ডেভিড সোবারম্যান বলেন, মূল বিষয়গুলোর মধ্যে একটি হলো

মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে প্রধান গ্রোসারি চেইনগুলোর মধ্যে কোনো সংঘাত হচ্ছে কিনা সেটি। এই কারণে পণ্যের দাম দ্রুত বেড়ে যেতে পারে।
ডালহৌসি ইউনিভার্সিটির ফুড ডিস্ট্রিবিউশন অ্যান্ড পলিসির অধ্যাপক সিলভেইন চার্লেবোয়িস বলেন, ভবিষ্যতে একীভূতকরণ ও অধিগ্রহণ মূল্যায়নে এই গবেষণা কম্পিটিশিন ব্যুরোকে ভালো অবস্থানে পৌঁছে দিতে পারে। তবে এই মূহূর্তে গ্রোসারি শিল্পে কোএনা ধরনের পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles