15.4 C
Toronto
শনিবার, আগস্ট ১৩, ২০২২

কানাডায় জব এবং আমার অভিজ্ঞতা

- Advertisement -
ছবি/ আলী তাওফিক, আনপ্লাশ

গত শুক্রবার আমাদের দেশি একজনের একটি Job ইন্টারভিউ ছিল। উনি বর্তমানে PT হিসাবে উনার প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন। ওই একই প্রতিষ্ঠানে উনি একটি FT সুপারভাইজার পদের জন্য ইন্টারভিউ দিয়েছিলেন। এর কয়দিন আগে উনি Case Worker (HSW) পদের জন্য ওখানেই ইন্টারভিউ দিয়েছিলেন। সেখানে উনার ইন্টারভিউ ভালো হলেও সিনিয়রিটির কারণে অন্য একজনের সেই কাজটি হয়। তবে সবুরে মেওয়া ফলে বা আল্লাহ ধৈর্যধারীকে পুরস্কৃত করেন। আজকে উনি একই জায়গায় সুপারভাইজার হিসাবে job offer পেলেন।

উনার সাথে আমার পরিচয় ২০১৭ তে BCCBর মাধ্যমে। এখানে কিছু পড়াশুনা এবং প্লেসমেন্ট করেও কাজ হচ্ছিলো না। এরপর একদিন একটি Tim Hortonএ আমরা দুই ঘন্টার জন্য বসি। এই, এর পর মাঝে মধ্যে কথা বলা ছাড়া আমি আর কিছুই করি নাই, তবে উনাকে যা যা বলেছিলাম সেগুলিতো করেছেনই, তারপরেও উনি নিজের থেকে আরো খাটাখাটনি করেছেন। খুবই proactive এবং self-motivated ছিলেন। উনার শুরুর কাজটা ছিল খুবই সাধারণ এবং সেই কাজের জন্য উনার যে যোগ্যতা আছে সেটির দরকার হয় না। যাহোক উনি উনার দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে আজকে এখানে।

তবে উনার এই পথচলাটা একেবারে মলিন ছিল না। কিরকম ছিল সেটি আপনারা একদিন জানবেন, হয়ত আমিই লিখবো।

আজকে সকালে কাজের ফাঁকে হটাৎ উনার ফোন পেয়ে বুজতে পেরেছিলাম ভালো কোনো খবর। কারণ এই ৪ বছর উনার প্রগ্রেস এবং self-motivation আমি লক্ষ করে আসছিলাম, তাতে উনি কতখানি জানতেন আমি সেটি জানি না, তবে আমি নিশ্চিত ছিলাম উনি একদিন ভালো কিছু করবেনই। উনার ইন্টারভিউয়ের আগে প্রস্তুতির সময় আমরা কিছুক্ষন কথা বলেছিলাম। আমার সময় ছিল না কারণ আমার নিজের একটি ট্রেনিং চলছিল তাই costcoতে গাড়ির gas নেওয়ার সময় উনার সাথে কথা বলি। এর পর উনি ইন্টারভিউয়ের পরেই মেসেজ দিয়ে খুব কনফিডেন্টলি বলেছিলেন উনার ইন্টারভিউ খুব ভালো হয়েছে। তখনই আমি আশা করেছিলাম, এইবার উনি ঠিকই কামিয়াব হবেন। সেইটা হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ। উনি আজকে অফারটি পাওয়ার সাথে সাথেই প্রথম ফোনটি আমাকেই করেন। এটি আমার শুধু মাত্র ভালো লাগার বিষয় নয়, সৌভাগ্যেরও ব্যাপার।

আপনি যদি একটি ফুল অথবা ফল গাছ লাগান, এবং একদিন যদি সেখানে ফুল বা ফল ধরে তখন কিন্তু আপনার অনেক ভালো লাগবে। তবে এই ক্ষেত্রে আমি কিন্তু গাছ লাগানোর মতো বড়ো কোনো কাজ করি নাই, শুধু মাত্র কালে ভদ্রে গাছে একটু পানি দিতে সাহায্য করেছি, তারপরেও যখন একটি ফোন কল পাই, যে “ভাই আমার চাকরিটা হয়ে গেছে”. এই কথাটি শুনতে খুবই ভালো লাগে !! মনে অন্য রকম অনুভতি হয়, আর সে জন্যেই যদি অন্যের জন্য কিছুটা সময় খরোচ হয় তাতেও কোনো খারাপ লাগে না।
আমার এই একটু সময়ের পরিবর্তে আমি মানুষের কাছে টাকা পয়সা, খানাপিনা, সুযোগসুবিধা এসব কিছুই চাইনা। চাই শুধু ওই রকমের একটি খবর এবং কিছু দোয়া।

আবারও প্রমাণিত হলো এখানে চাকরির বাজার যেরকমই হোক আপনি যদি ধৈর্য ধরে, আপনার সামর্থের সবটুটকু দিয়ে চেষ্টা করেন তাহলে সাফল্য আসবেই। ব্যতিক্রম থাকতে পারে তবে খুবই সামান্য। আপনাকে আপনার পাশের আর একজনের মতো করতে হবে না, বা তার সাথে তুলনা করতে হবে না। শুধুমাত্র আপনার সাধ্যের ১০০% না হলেও অন্তত ৮০% দেওয়ার চেষ্টা করুন, আর তুলনা করুন আপনার নিজের সাথে। দেখুন আজকে সকালের থেকে বিকালে কিছুটা বেশি বা ভালো করতে পারলেন কি না অথবা গত বছর থেকে এবছর কিছুটা ভালো হলো কিনা। তাতেই দেখেবন আপনার পছন্দের অনেটাই পাবেন। আর কোনো কিছু করতে চাইলে আপনাকে ১০০% মনোযোগ দিয়ে করতে হবে। এবং সে জন্য যদি মনে করেন মাত্র এক বা দুই ঘন্টাও দিতে পারেন সেটাও ভালো। কিন্তু যথাযথ মনোযোগ বা Focus না থাকলে খুব একটা কাজ হবে না।

আমরা, দেখা যাচ্ছে শুধুমাত্র ১/২ ঘন্টা নয়, শুরু করি ৪/৫ ঘন্টার এজেন্ডা নিয়ে, কিন্তু সেখানে যথাযত মনোযোগের অভাবে ৪/৫মিনিটও কাজে লাগে না। সবাই ভালো থাকবেন এবং নিজের প্রতি বিশ্বাস রেখে নিজের সাধ্যের শতভাগ দেওয়ার চেষ্টা করুন। ভালো কিছু পাবেন ইনশাল্লাহ ! আমি যার কথা বললাম উনি পেশায় একজন চিকিৎসক। উনার নাম, প্রতিষ্ঠান ইত্যাদি উনার প্রবেশন পিরিয়ড পার হওয়ার পর বিস্তারিত জানানো হবে। আমি খবরটি শুনে আমার excitement আর ধরে রাখতে পারলাম না তাই খবরটি শেয়ার করলাম।

স্কারবোরো, টরন্টো

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles