17 C
Toronto
সোমবার, মে ২৭, ২০২৪

উত্তম কুমারের বাসর ঘরে লুকিয়ে ছিলেন দুই নারী!

উত্তম কুমারের বাসর ঘরে লুকিয়ে ছিলেন দুই নারী!
উত্তম কুমার

বাংলা চলচ্চিত্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেতা উত্তম কুমার। তার ছোটবেলা কেটেছে ভারতের মধ্য কলকাতার ভবানীপুরে। পাড়ার মেয়ে গৌরী দেবীকে মন দিয়েছিলেন উত্তম। বিয়ে হয়েছিল অল্প বয়সেই। সেই সময় তিনি মহানায়ক হননি। অভিনয় করতেন মাত্র। কিন্তু তার বিয়েতে জমকালো আয়োজনের অভাব ছিল না।

জানা গেছে, উত্তম-গৌরীর বাসর ঘরে লুকিয়ে ছিলেন দুই নারী। বিষয়টি প্রকাশ্যে এনেছেন উত্তমের ভাই তরুণ কুমার। ‘আমার দাদা উত্তমকুমার’ বইতে ঘটনাটির বর্ণনা দিয়েছেন তিনি।

- Advertisement -

তরুণ কুমার জানান, গৌরীর বাবা যখন উত্তমের বাড়িতে মেয়ের সম্বন্ধ নিয়ে এসেছিলেন, তখন বিয়েতে পণ দেওয়া-নেওয়া নিয়ে কথা হয়। উত্তমের বাবা সাতকড়ি চট্টোপাধ্যায় বলেন, আমার বড় মেয়ে মারা গেছে। তার বিয়ে দিতে পারিনি। বাড়িতে মেয়ের অভাব। ফলে বিয়েতে কী দিতে হয় জানি না। আমাদের কিছু লাগবে না। তবে গৌরীকে কিছু দিতে চাইলে দিতে পারেন।

উত্তমের সঙ্গে বিয়ের পর বাড়িতে মেয়ের অভাব ঘুঁচিয়ে দিয়েছিলেন গৌরী। আর তার ফুলশয্যায় ঘটেছিল এক অভাবনীয় কাণ্ড। উত্তম-গৌরীর বাসর ঘরে ট্রাঙ্কের পেছনে লুকিয়ে ছিলেন তাদেরই এক বৌদি এবং তার এক ননদ। বিষয়টির এক আত্মীয়ের মাধ্যমে জানতে পারেন উত্তম। তাই ট্রাঙ্কের কাছে তিনি একটি গ্লাস ভেঙে ফেলেন। এরপরই বেরিয়ে আসেন দুজন।

উত্তম মনে-মনে হেসেছিলেন খুব। বলেছিলেন, এই ঘরের দরজা-জানালা সব খুলে দিচ্ছি। ফুলশয্যায় আমরা কী কী করছি, সব তোমরা দেখো। তোমাদের লুকিয়ে থাকতে হবে না। উত্তমের মুখে এই কথা শুনে ঘর ফাঁকা হয়ে যায় মুহূর্তেই।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles