6.6 C
Toronto
রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০২৪

একুশে ফেব্রুয়ারি কী জানেনা অনেকে

একুশে ফেব্রুয়ারি কী জানেনা অনেকে
স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা একুশে ফেব্রুয়ারি ১৬ই ডিসেম্বর ২৬শে মার্চ সম্পর্কে তেমন জানে না

গত ক দিনে অনেকেই ভিডিওটা দেখেছেন। স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা একুশে ফেব্রুয়ারি, ১৬ই ডিসেম্বর, ২৬শে মার্চ সম্পর্কে তেমন জানে না। কোনটা শোকের, কোনটা উদযাপনের তাও জানে না। এতে ওদের কোন দোষ আছে বলে মনে হয় না। আগের দিনে একুশের ভোরে ঘুম ভেঙে যেত প্রভাত ফেরীর শব্দে। দ্রুত প্রস্তুত হয়ে বুকে কালো ব্যাজ নিয়ে খালি পা’য়ে সামিল হয়ে যেতাম দীর্ঘ শোক মিছিলের অবয়বে প্রভাত ফেরীতে।

গোয়ালন্দের এক বড় ভাই যার নামটা কিছুতেই মনে করতে পারছি না এ মুহুর্তে, তিনি বুকের সাথে হারমোনিয়াম পেঁচিয়ে গাইতেন “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি…” আর তার সাথে সকলে গাইতে গাইতে দীর্ঘ মিছিল শহীদ মিনারে গিয়ে পুস্প স্তবক অর্পণের পর শেষ হতো। অবশ্য তখনকার শহীদ মিনারের গঠনে এত চাকচিক্য ছিল না, মোটামুটি তিনটা স্তম্ভ টাইপের হলেই হতো, মানুষের পোষাকে কোন বাহারী ছিল না, হাজার টাকার পুস্প স্তবকের পরিবর্তে বাগানের ফুলের গুচ্ছ কিংবা একটি ফুলের নিবেদনেও ছিল শহীদদের প্রতি অগাধ শ্রদ্ধা আর ভালবাসার বহির্প্রকাশ। মানুষ আসতো স্বতস্ফুর্তভাবে।

- Advertisement -

আর এখন মধ্যরাতে যেন শুরু হয় একুশে উদযাপন। বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস কিংবা কারো বিয়েতে নেমতন্ন খেতে যাবার মধ্যে তেমন পার্থক্য দেখা যায় না। সেজন্যেই হয়তো ছেলে মেয়েরা কোন দিবসের তাৎপর্য কী, এসবের ইতিহাস কী তা জানে না।

আরো বড় কারণ হলো বাচ্চাদের মগজ ধোলাই করছি আমরা রাজনৈতিক স্বার্থ সিদ্ধির জন্যে ও বিদেশী প্রেসক্রিপসনে। ফলে পাঠ্য বইতে গুরুত্ব পাচ্ছে শরীফ শরীফার গল্প, একুশ, বিজয় দিবস কিংবা স্বাধীনতা দিবস নয়। খুবই দুঃখজনক।

স্কারবোরো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles