অক্টোবরে জিটিএতে বাড়ি বিক্রি কমেছে ৭%

- Advertisement -
ফাইল ছবি

গ্রেটার টরন্টো এরিয়াতে (জিটিএ) সম্ভাব্য ক্রেতারা খুব কম বাড়িই খুঁজে পেয়েছেন। এর ফলে একদিকে বাড়ির বিক্রি কমেছে, অন্যদিকে বেড়ে গেছে দাম।

টরন্টো রিজিয়নাল রিয়েল এস্টেট বোর্ড (টিআরআরইবি) বুধবার জানিয়েছে, গত মাসে এলাকাটিতে হাত বদল হয়েছে ৯ হাজার ৭৮৩টি বাড়ি, গত বছরের একই সময়ের চেয়ে যা ৭ শতাংশ কম। ২০২০ সালের অক্টোবরে বিক্রি হয়েছিল মোট ১০ হাজার ৫০৩টি বাড়ি। একই সঙ্গে মাসটিতে বিক্রির জন্য তালিকাভুক্ত নতুন বাড়ি গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এক-তৃতীয়াংশ হ্রাস পেয়েছে।

- Advertisement -

টিআরআরইবির উপাত্ত বলছে, গত মাসে বিক্রির জন্য তালিকাভুক্ত হয়েছে ১১ হাজার ৭৪০টি বাড়ি। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এ সংখ্যা ৩৪ শতাংশ কম। ২০২০ সালের অক্টোবরে তালিকাভুক্ত হয়েছিল ১৭ হাজার ৮০৬টি বাড়ি। গত মাসে সক্রিয় বিক্রির তালিকায় বাড়ি ছিল মোট ৭ হাজার ৭৫০টি, ২০২০ সালের একই সময়ে যেখানে সংখ্যাটি ছিল ১৭ হাজার ৩১৩টি।

বাজারে বাড়ির সংখ্যা কমে যাওয়া ক্রেতাদের জন্য অস্বস্তির। যদিও মহামারির কারণে অর্থনৈতিক ধাক্কা সামাল দিতে চালু করা কম সুদ হারের সুবিধা এখনও ভোগ করছেন অনেকেই।

- Advertisement -

টিআরআরইবি বলছে, অক্টোবরে বাড়ির দাম বেড়েছে প্রায় ২০ শতাংশ। গত মাসে বাড়ির দাম ছিল প্রায় ১২ লাখ ডলার। গত বছরের একই সময়ে দাম ছিল যেখানে ৯ লাখ ৬৮ হাজার ৫৩৫ ডলার। ডিটাচড হোমের দাম ছিল গড়ে ১৫ লাখ ডলার এবং সেমি ডিটাচড হোমের ১২ লাখ ডলার। অন্যদিকে টাউনহাউজের দাম দাঁড়ায় গড়ে ৯ লাখ ৫৭ হাজার ১০৩ ও কন্ডোর ৭ লাখ ৩ হাজার ৬৯৮ ডলার।
বার্ষিক হিসাবে ডিটাচড হোমের দাম বেড়েছে ২৮ শতাংশ। এছাড়া সেমি ডিটাচড হোমের দাম বেড়েছে ২৪, টাউনহাউজের ২৮ ও কন্ডোর ১৩ শতাংশ।

- Advertisement -

টিআরআরইবির প্রেসিডেন্ট কেভিন ক্রিগার বলেন, বাড়ির উচ্চ মূল্য আবাসন বাজারে আরও বাড়ির সরবরাহের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি সামনে এনে দিয়েছে। জিটিএতে নাগরিকদের হাতে সাশ্রয়ী মূল্যে বাড়ি তুলে দেওয়ার একমাত্র উপায় হচ্ছে চাহিদা ও সরবরাহের মধ্যে ভারসাম্য আনা। চাহিদা শিগগিরই ফুরিয়ে যাচ্ছে না।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles