6.1 C
Toronto
সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪

রোমানিয়ার কন্যা আমতলীর বধূ স্বজনদের দেখতে এলেন হেলিকপ্টারে

রোমানিয়ার কন্যা আমতলীর বধূ স্বজনদের দেখতে এলেন হেলিকপ্টারে
রোমানিয়ার কন্যা আমতলীর বধূ স্বজনদের দেখতে এলেন হেলিকপ্টারে<br >রোমানিয়ার কন্যা সিমনা বধূ হিসাবে বৃহস্পতিবার বরগুনার আমতলীতে এসেছেন

রোমানিয়ার কন্যা আমতলীর বধূ স্বজনদের দেখতে এলেন হেলিকপ্টারে
রোমানিয়ার কন্যা সিমনা বধূ হিসাবে বৃহস্পতিবার বরগুনার আমতলীতে এসেছেন। তাকে একনজর দেখতে শত শত মানুষ ভিড় করে। আমতলী পৌরসভা কার্যালয়ের পশ্চিম পাশে ঈদগাহ ময়দানে উষ্ণ অভ্যর্থনায় অভিভূত বধূ সিমনা।

জানা গেছে, আমতলী পৌর শহরের কালিবাড়ীর বাসিন্দা সোনা মাতুব্বরের ছেলে নাসির মাতুব্বর কাজের সন্ধানে ২০০৩ সালে ইতালির উদ্দেশে যাত্রা করেন। চার বছর জীবন বাজি রেখে ছয়টি দেশ পাড়ি দিয়ে ২০০৭ সালে ইতালি পৌঁছেন। সেখানে কাজের সুবাদে রোমানিয়ার মেয়ে সিমনার সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরিচয় সূত্রে প্রেম। ২০১৩ সালে তাদের প্রেমের পরিণতি গড়ায় প্রণয়ে।

- Advertisement -

ওই দম্পতির দাবিদ নামের পাঁচ বছরের এক পুত্রসন্তান রয়েছে। ইতালি প্রবাসী নাসির বর্তমানে গার্মেন্টের ব্যবসা করেন। ভালোই কাটছে তাদের দাম্পত্য জীবন।

বৃহস্পতিবার স্বজনদের দেখতে হেলিকপ্টারে বধূ ও পুত্র সন্তান নিয়ে আমতলী আসেন নাসির। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পৌরসভা কার্যালয়ের পশ্চিম পাশে ঈদগাহ ময়দানে তাদের বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণ করে।

এ সময় শত শত উৎসুক জনতা তাদের দেখতে ভিড় জমায়। ওই দম্পতিকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানায় স্বজনরা। রোমানিয়ার মেয়ে আমতলীর বধূ সিমনা উৎসুক জনতাকে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান।

ইতালি প্রবাসী নাসির মাতুব্বর বলেন, আমরা এখন ভালোই আছি। স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে হেলিকপ্টারে বধূ ও ছেলে দাবিদকে নিয়ে এসেছি। কিছুদিনের মধ্যেই আবার চলে যাব।

আমতলীর বধূ সিমনা বলেন, আমরা ছেলে সন্তান নিয়ে ভালোই আছি। আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles