23.6 C
Toronto
শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪

তথ্য গোপন করেও জাপার প্রার্থী জোনাকির মনোনয়ন বৈধ

তথ্য গোপন করেও জাপার প্রার্থী জোনাকির মনোনয়ন বৈধ
মিসেস জোনাকি হুমায়ুন ছবি সংগৃহীত

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-১০ (কুমিল্লা সদর দক্ষিণ, লালমাই ও নাঙ্গলকোট) আসনে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী মিসেস জোনাকি হুমায়ুন হলফনামায় তথ্য গোপন করেও রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক বৈধ প্রার্থী ঘোষিত হয়েছেন। এনআইডির তথ্যে তার শিক্ষাগত যোগ্যতা মাধ্যমিক (দাখিল পাস) হলেও হলফনামায় তিনি নিজেকে স্বশিক্ষিত উল্লেখ করেছেন। অথচ একই অভিযোগে কুমিল্লা-৭ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মুনতাকিম আশরাফ টিটুর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

এর আগে ২০১৯ সালে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছিলেন মিসেস জোনাকী হুমায়ুন।

- Advertisement -

সেই সময়েও তিনি হলফনামায় স্বশিক্ষিত উল্লেখ করেছিলেন। যাচাই বাছাইয়ের দিন অন্য একজন চেয়ারম্যান প্রার্থী সকল তথ্য উপাত্ত জমা দিয়ে আপত্তি জানালে রিটার্নিং অফিসার জোনাকি হুমায়ুনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, লালমাই উপজেলার ভুলইন উত্তর ইউনিয়নের হলদিয়া গ্রামের মমতাজ উদ্দিন আহমেদ ও আমেনা আহমেদের কন্যা আশেকা রাসুল ১৯৯৬ সালে হলদিয়া উসমানিয়া মহিলা মাদরাসা থেকে দাখিল পাস করেছেন। দাখিল সার্টিফিকেট অনুযায়ী তার জন্ম তারিখ ০১.০৩.১৯৮২।

ওই বছরেই কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার চৌয়ারা ইউনিয়নের বামিশা গ্রামের হুমায়ুন কবিরের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। নিকাহ রেজিস্ট্রারেও তার নাম আশেকে রাসুল উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু এনআইডি সার্ভারে অন্তর্ভুক্তির সময় তার নাম পরিবর্তন করে মিসেস জোনাকী হুমায়ুন, শিক্ষাগত যোগ্যতা মাধমিক ও জন্ম তারিখ ০৭.০৮.১৯৭৮ লিপিবদ্ধ করা হয়।
জোনাকি হুমায়ুনের প্রস্তাবকারী, লালমাই উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের মিজানুর রহমান বলেন, আমাদের প্রার্থীর বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সত্য নয়।

প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে। প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর প্রচারণা শুরু করব।
কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম সারওয়ার বলেন, ২০১৯ সালে হলফনামায় শিক্ষা সনদের তথ্য গোপন করায় মিসেস জোনাকী হুমায়ুনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছিল। শুনেছি এবারও তিনি তথ্য গোপন করেছেন।

সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবাইয়া খানম বলেন, যাচাই বাছাইয়ের দিন অন্য প্রার্থীরা মিসেস জোনাকি হুমায়ুনের মনোনয়নের বিষয়ে কোনো অভিযোগ করেননি।

তারপরও গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ অনুযায়ী রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি মাননীয় নির্বাচন কমিশন বরাবর আপিল করার সুযোগ রয়েছে।
উল্লেখ্য, কুমিল্লা-১০ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মিসেস জোনাকি হুমায়ুন ছাড়াও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী, বর্তমান সংসদ সদস্য ও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এবং বাংলাদেশ কংগ্রেসের প্রার্থী মোহাম্মদ কামরুজ্জামানের মনোনয়নপত্র বৈধ এবং বিভিন্ন অভিযোগে তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী মো. আবুল কাশেম মজুমদারসহ ৪ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles