7 C
Toronto
রবিবার, মার্চ ৩, ২০২৪

ফেসবুক লাইভে মদের ব্যবসাকে ‘হালাল’ বলে তোপের মুখে চেয়ারম্যান

ফেসবুক লাইভে মদের ব্যবসাকে ‘হালাল’ বলে তোপের মুখে চেয়ারম্যান

এবার ফেসবুক লাইভে এসে মদকে মেডিসিনের সঙ্গে তুলনা করে আলোচনার জন্ম দিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার চেয়ারম্যান ফিরোজুর রহমান ওলিও। এ সময় তিনি মদকে হালাল ব্যবসা বলেও মন্তব্য করেন।

- Advertisement -

সোমবার মধ্যরাতে নিজের ফেসবুক আইডিতে দেওয়া লাইভে এসে এসব মন্তব্য করেন এ উপজেলার চেয়ারম্যান। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বইছে সমালোচনার ঝড়।

ফেসবুক লাইভে এক ব্যক্তির প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে ফিরোজুর রহমান ওলিও বলেন, এটা (মদ) মেডিসিন হিসেবে খায়, তোমাকে (প্রশ্নকারী) ব্যবস্থা করে দেবো, যদি ডাক্তার বলে। আমরা তো বলতে চাই না, আমরা তো ঘুষ খাই না। আমরা তো শুনি, মানুষের মনে কষ্ট দিই না। এসব নিয়ে বলতে চাই না।

ফিরোজুর রহমান আরও বলেন, সরকারকে জিজ্ঞাসা করেন লাইসেন্স কেন দেয়। তোমাদের সরকারই তো দিচ্ছে, ২০-৩০ বছরের ভেতরে কেউ দেয়নি। আমাদের সরকার এসেই তো লাইসেন্স দিয়ে ভরিয়ে ফেলছে দেখলাম। আমার ম্যানেজাররাও কোটি টাকা চুরি করে তিন-চারটি করে মদের বার দিয়েছে। যদিও আমি এখন এ ব্যবসায় নেই। আমার সন্তানরা থাকা মানেই আমি থাকা, এটা কোনো ব্যাপার না। ব্যবসা আমার পবিত্র ব্যবসা।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি ব্যাংকের ব্যবসা করি। ইসলামের বিধান আছে তুমি যেটার কথা বলছো (মদের ব্যবসা) এটার জন্য যদি ১০টা বেত মারে, ব্যাংকের ব্যবসার জন্য মারবে ১০০টা বেত। কিন্তু ব্যাংকের ব্যবসা নিয়ে কিছু কয় না। আমি হালাল ব্যবসা করি, এসব সরকার বুঝবে। হালাল না হলে কী সরকার ব্যবসা করে! নাহলে সরকারই তো বেহাল হয়ে যাবে। এই ব্যবসা নিয়ে ইসলাম কী বলে তা সরকার বুঝবে।’

এদিকে তার এসব মন্তব্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন অনেকে।

উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের পাঁচবারের চেয়ারম্যান ছিলেন ফিরোজুর রহমান ওলিও। পরে সর্বশেষ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। তিনি স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তা পরিচালক। রাজধানীতে তার মালিকানাধীন একাধিক মদের বার রয়েছে।

সূত্র : আরটিভি

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles