26.4 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

তালেবানদের কাবুল দখলের দুই বছর

তালেবানদের কাবুল দখলের দুই বছর
তালেবানদের কাবুল দখলের দুই বছরের প্রাক্কালে আফগান নারীরা কানাডিয়নাদের নারী শিক্ষা রক্ষার উদ্যোগে শামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন

তালেবানদের কাবুল দখলের দুই বছরের প্রাক্কালে আফগান নারীরা কানাডিয়নাদের নারী শিক্ষা রক্ষার উদ্যোগে শামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে সন্ত্রাসী গ্রুপকে বৈধতা দেওয়ার বিরুদ্ধেও রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

তবে কানাডিয়ান ডেভেলপমেন্ট গ্রুপ কবে নাগাদ আফগানিস্তানে কবে নাগাদ প্রকল্প শুরু করতে পারবে সে ব্যাপারে কিছু বলেনি অটোয়া। আফগানিস্তানে কানাডিয়ান উইমেন ফর উইমেনের জ্যেষ্ঠ পরিচালক মারওয়ারিদ জিয়ায়ি বলেন, দুই বছর আফগানিস্তানে যা চলছে তা পুরোপুরি মানবিক ও মানবিধকারের সংকট।
পার্লামেন্ট হিল অভিমুখে পদযাত্রা করা জোটটির অংশ হচ্ছে এই গ্রুপটি। মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধে শেষ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে তালেবানদের বিচার দেখতে চায় গ্রুপটি।

- Advertisement -

কট্টরপন্থী মৌলবাদী গ্রুপটি ২০২১ সালের ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান দখল করে নেয়। দুই বছরের সামরিক মিশন শেষে মার্কিন সেনাবাহিনী প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর কাবুলের দখল নেয় তালেবানরা। ওই মিশনে কানাডার বড় ধরনের অংশগ্রহণ ছিল।

মিশনে সাতজন বেসামরিক নাগরিকসহ ১৬৫ জন কানাডিয়ান নিহত হন। ওই সময় নারীরা স্কুলে যেতে পারত। এমনকি বিশ^বিদ্যালয়ে, কোম্পানিতে এবং সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে প্রবেশের সুযোগ পেত।
তালিবানরা কাবুলের দখল নেওয়ার পরপরই আফগানিস্তানের ওপর বৈশি^ক নিষেধাজ্ঞা জোরদার করা হয়। এর ফলে দেশটির অর্থনৈতিক সংকটও আরও গভীর হয়। সেই সঙ্গে চরম আবহাওয়া ও ভূমিকম্পের ঘটনাও ঘটে। কাবলের পতনের ছয় মাসের মধ্যে জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ৯৫ শতাংশ আফগান নাগরিক পর্যাপ্ত খাবার খেতে পারছে না।

তালেবানদের দাবি, তাদের শাসনাধীনে বোমা হামলা ও ঘুষ লেনদেন কমে গেছে। তবে নারীদের ওপর নিপীড়নের চিত্র তুলে ধরে জাতিসংঘ। তাদেরকে জরুরি স্বাস্থ্যসেবার পাশাপাশি বিভিন্ন পেশায় কাজ করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। বিবিসির পার্সিয়ান সার্ভিস এ মাসে এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করে, নির্দিষ্ট কিছু প্রদেশে তালেবান নেতারা ১০ বছর বয়সী মেয়েদের শিক্ষার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। সেকেন্ডারি শিক্ষায় মেয়েদের অংশগ্রহণ আগেই বন্ধ করে দিয়েছে তালেবানরা।

জিয়ায়ি কাবুলে বড় হয়েছেন এবং গণতান্ত্রিক সরকারের সময় দুই দশক আফগানিস্তানে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে কাজ করেছেন। তার গ্রুপটি সেখানে স্কুল পরিচালনা করে আসছে এবং সম্প্রতি তারা ১০ থেকে ১২ বছর বয়সী মেয়েরা তাদের ভবিষ্যৎ কীভাবে দেখছে সেই ছবি চেয়ে পাঠায়। অনেকেই তাদেরকে কারাগারে বা খাঁচায় বন্দি হিসেবে চিহ্রিত করে। অন্যরা পুরোপুরি অন্ধকারের ছবি আঁকে।

জিয়ায়ি বলেন, তাদের জীবনের বাস্তবতকা খুবই কঠিন। আমরা কেবল আশাহতের গল্প শুনছি। এটা আমাকে তাদের পাশে শক্তভাবে দাঁড়াতে উদ্বুদ্ধ করছে। কারণ, ভেতর থেকে তারা এটা করতে পারবে না। যদিও তালেবানদের প্রতিরোধের মাধ্যমে নারীরা যথেষ্ট শক্তি ও সাহস দেখিয়েছে।

কানাডিয়ান উইমেন ফর উইমেন আফগানিস্তানে তাদের কিছু স্কুলের কার্যক্রম অনলাইনে স্থানান্তরিত করেছে। বাবা-মায়েরা তাদের সন্তানদের গোপনে সেসব স্কুলে অংশ নেওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles