17.2 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪

প্রেমিকাকে ১১৮৩ কোটি টাকা দিয়ে গেছেন বেরলুসকোনি

প্রেমিকাকে ১১৮৩ কোটি টাকা দিয়ে গেছেন বেরলুসকোনি
ফ্যাসিনাকে বিয়ে না করলেও মৃত্যুর আগে তাকে নিজের স্ত্রী হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন বেরলুসকোনি

ইতালির সাবেক প্রধানমন্ত্রী সিলভিও বেরলুসকোনি গত ১২ জুন ৮৬ বছর বয়সে মারা যান। গার্ডিয়ানের নতুন এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তিনি তার ৩৩ বছর বয়সী প্রেমিকা মার্তা ফ্যাসিনার জন্য ১০০ মিলিয়ন ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১ হাজার ১৮২ কোটি টাকার বেশি) উইল করে গেছেন।

ইতালির সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর মোট সম্পত্তির প্রায় ৬ বিলিয়ন ইউরোর বেশি। গার্ডিয়ান বলছে, ২০২০ সালের মার্চে বেরলুসকোনির সঙ্গে ফ্যাসিনার সম্পর্ক শুরু হয়। তিনি ফ্যাসিনাকে বিয়ে না করলেও মৃত্যুর আগে তাকে নিজের ‘স্ত্রী’ হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন।

- Advertisement -

৩৩ বছর বয়সী ফ্যাসিনা ২০১৮ সালের সাধারণ নির্বাচনের পর থেকে ইতালির পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের সদস্য। তিনি দেশটির রাজনৈতিক দল ফোরজা ইতালিয়ার ডেপুটি। ১৯৯৪ সালে রাজনীতিতে আসার পর এ দল প্রতিষ্ঠা করেন বেরলুসকোনি।

তবে এখন বেরলুসকোনির ব্যবসা তার দুই বড় সন্তান মেরিনা এবং পিয়ের সিলভি পরিচালনা করবেন। তারা ইতিমধ্যেই ব্যবসার নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্বে আছেন। তারা ফিনিভেস্ট পরিবারের হোল্ডিংয়ে ৫৩ শতাংশ পাবেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ইতালির সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী তার ভাই পাওলোর জন্য ১০০ মিলিয়ন ইউরো এবং মার্সেলো দেলউত্রিকেও ৩০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে গেছেন। দেলউত্রি ফোরজা ইতালিয়া পার্টির একজন সাবেক সিনেটর। মাফিয়ার সঙ্গে যুক্ত থাকার তিনি দায়ে কারাভোগও করেছেন।

১৯৩৬ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর মিলানের একটি মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম বেরলুসকোনির। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় শহরের বাইরে একটি গ্রামে বড় হয়েছিলেন তিনি। বিতর্ক, সমালোচনা আর কেলেঙ্কারির মধ্যেও তিনি দেশটির চারবারের সরকারপ্রধান ছিলেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটির বৃহত্তম মিডিয়া সাম্রাজ্যের কর্ণধার বেরলুসকোনি, সেইসঙ্গে তিনি ফুটবল ক্লাবের মালিক ছিলেন। এছাড়া তার ছিল শত শত কোটি ডলারের ব্যবসা। কিন্তু তিনি কখনই রাজনীতি ছাড়েননি। কয়েক দশক ধরে তিনি ইতালির ভাবমূর্তি তৈরিতে বিশাল ভূমিকা রেখেছেন।

তবে ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কেলেঙ্কারি তার পিছু ছাড়েনি। প্রায়ই দেখা যেত কম বয়সী সুন্দরী নারীরা তাকে ঘিরে রয়েছে। তার যৌন কেলেঙ্কারির নানা ঘটনা বিশ্বজুড়ে বহুবার শিরোনাম হয়েছে। কিন্তু তাতে তার সমর্থকরা তেমন টলেনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles