26.1 C
Toronto
শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

গণতন্ত্র এবং ভাবনা

গণতন্ত্র এবং ভাবনা
ফাইল ছবি

যারা আমেরিকার গনতন্ত্র নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করেন, টিকা টিপ্পনি কাটেন এবং নিজেদের অপকর্মের সাথে গুলিয়ে ফেলেন, মেলানোর চেষ্টা করে কাটাকাটি করেন তাদের জন্যে আজকের একটা সংবাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

বর্তমান দুনিয়ার পরাক্রমশালী রাষ্ট্র আমেরিকার বর্তমান প্রেসিডেন্ট বাইডেনের ছেলে হান্টার বাইডেনের বিরুদ্ধে একটি চলমান মামলায় হান্টার বাইডেন দোষ স্বীকার করেছে।

- Advertisement -

বিগত পাঁচ বছর ধরে এফবিআই, আইআরএস (কর বিভাগ) এবং ফেডারেল প্রসিকিউটর কর্তৃক তদন্তের পর আজ আমেরিকার সরকারী এটর্নি ডেভিড ওয়েস যিনি আবার আগের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কর্তৃক নিয়োগকৃত তার সাথে এই চুক্তিতে পৌঁছেছেন যে তিনি আদালতে দোষ স্বীকার করবেন। প্রেসিডেন্টের সন্তান বলে তার মামলা প্রত্যাহার করে নেয়া হয় নি।
তাঁর অপরাধ কী?

অপরাধ হলো তিনি ২০১৭ এবং ২০১৮ সালে আয়কর ফাঁকি দিয়েছেন। ঐ দু বছরে ১৫ মিলিয়নের বেশী করযোগ্য আয় করেছেন তিনি। সরকারের তার কাছে প্রতিবছর এক লক্ষ ডলারের বেশী আয়কর পাওনা থাকলেও ঐ দু বছর তিনি তা পরিশোধ করেন নি। এছাড়াও তাঁর বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র রাখার মামলা রয়েছে, সেগুলোরও নিস্পত্তি হবে যদি তিনি কিছু শর্ত পূরণ করেন।
শাস্তি কি হতে পারে?

চুক্তি অনুযায়ী আপাতত বাইডেনের ছেলেকে জেলে যেতে হবে না তবে প্রবেশনে রাখা হবে। তার মানে হলো তিনি এখন থেকে আর কোন অন্যায় করবেন না, আইন অনুযায়ী নিয়মিত ট্যাক্স দিবেন, আইন মেনে চলবেন। একটা নির্দিষ্ট সময় এই প্রবেশনে থাকবেন এবং ফেল করলে তাকে জেলে যেতে হতে পারে।

অবশ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এই শাস্তিকে বড় অপরাধে লঘু দন্ড বলে কঠোর সমালোচনা করে বলেছেন এটা একটা ট্রাফিক টিকিট হাতে ধরিয়ে দেবার মত শাস্তি হয়েছে।

স্কারবোরো, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles