23.6 C
Toronto
শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪

ব্যবসাবান্ধব মেয়রের প্রত্যাশায় বিদেশি বিনিয়োগকারীরা

ব্যবসাবান্ধব মেয়রের প্রত্যাশায় বিদেশি বিনিয়োগকারীরা
বিদেশি বিনিয়োগকারীরা জন টরির মতোই আরেকজন ব্যবসাবান্ধক মেয়রের প্রত্যাশায় রয়েছেন বলে জানিয়েছেন পর্যবেক্ষকরা

সামনের মাসগুলোতে নতুন মেয়র নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে আছে টরন্টোবাসী। এই অবস্থায় বিদেশি বিনিয়োগকারীরা জন টরির মতোই আরেকজন ব্যবসাবান্ধক মেয়রের প্রত্যাশায় রয়েছেন বলে জানিয়েছেন পর্যবেক্ষকরা।

মেয়র হিসেবে টরির যুগের অবসান ঘটেছে গত শুক্রবার। এর মধ্য দিয়ে ১০ ফেব্রুয়ারি পদত্যারগর ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে এক সপ্তাহের বিক্ষুব্ধ সময়েরও অবসান ঘটল। সাবেক এক কর্মীর সঙ্গে অনুপযুক্ত সম্পর্কের কারণে মেয়র থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন জন টরি।
এটা আন্তর্জাতিক সংবাদপত্রের শিরোনাম হয়। ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার আন্তর্জাতিক রাজনীতির সহযোগী অধ্যাপক প্যাট্রিক জেমস বলেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা বিব্রতকর ও নোংরা বিবাহ বহির্ভুত সম্পর্ক নিয়ে ভাবেন না। তারা যেটা চিন্তা করছেন তা হলো সামনে কী অপেক্ষা করছে।

- Advertisement -

কানাডিয়ান এই অভিবাসী বলেন, গড়পড়তা বিনিয়োগকারীই এই বলে মাথা চুলকাচ্ছেন যে, আমরা আবারও কঠোর কোনো মেয়র পাবো কিনা, যিনি ব্যবসাবান্ধব ভূমিকা পালন করবেন।

৬৮ বছর বয়সী টরি টরন্টোর ব্যবসায়ী ও রাজনীতিক এলিটদের একজন এবং মধ্যম শ্রেণির রক্ষণশীল হিসেবে রাজনীতিতে প্রবেশের আগে ব্যবসায়িক ও ব্রডকাস্টার ক্যারিয়াজুড়ে এই সুনাম ধরে রেখেছিলেন তিনি। তিনি ছিলেন রজার্স ফ্যামিলি ট্রাস্টের উপদেষ্টা কমিটির একজন। রজার্স ফ্যামিলি রজার্স কমিউনিকেশন্স ইনকর্পোরেশনের নিয়ন্ত্রক।

টরন্টো মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির খ-কালীন শিক্ষক রবার্ট স্পিল বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় চাইছেন পরবর্তী মেয়র টরির মতোই কেউ একজন হোক। টরি ব্যবসায়ীবান্ধব হিসেবে সুনাম অর্জন করেছেন।

স্পিল বলেন, পরবর্তী মেয়র যদি এমন কেউ হন, যিনি ব্যবসায়ীবান্ধব নন তাহলে টরন্টোতে আমেরিকান বিনিয়োগের ওপর তার প্রভাব পড়তে পারে।

নতুন মেয়র নির্বাচনে উপনির্বাচনের আগ পর্যন্ত সিটি হলে তুলনামূলক নবীন ডেপুটি মেয়র জেনিফার ম্যাককেলভি মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। তবে মেয়রের পদে নির্বাচন করবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

তার ব্যবসার সঙ্গে কোনো সম্পর্ক না থাকলেও পর্যবেক্ষরা বলছেন, বিনিয়োগকারীরা চাইছেন সাময়িকভাবে হলেও ম্যাককেলভির দায়িত্ব গ্রহণের মধ্য দিয়ে যেনো ভবিষ্যৎ সুযোগ যাতে প্রভাবিত না হয়।

ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির পাবলিক পলিসি অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের সহযোগী অধ্যাপক জ্যাক স্পাইসার বলেন, বাণিজ্য সফর বা বৈঠক সম্ভবত আগে থেকেই নির্ধারিত করা আছে এবং সেগুলো অনুষ্ঠিতও হবে। ডেপুটি মেয়র নতুন ব্যয়, তহবিল বা নীতির প্রশ্নে জোর দিয়ে দেনদরবার করবেন বলে আমার মনে হয় না।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles