4.1 C
Toronto
শনিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২২

ফেসবুকে প্রেম, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক

ফেসবুকে প্রেম, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক

মাদারীপুরের ডাসার উপজেলার দক্ষিণ চলবল গ্রামে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন শুরু করেছেন এক তরুণী (২৩)।

- Advertisement -

বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) সকালে ডাসার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাসানুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে বুধবার (২ নভেম্বর) সকাল থেকে একই গ্রামের প্রেমিক শৈশব বালার বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন তিনি। অভিযুক্ত প্রেমিকের বাবার নাম দুলাল বালা।

জানা গেছে, বুধবার সকালে ভুক্তভোগী তরুণী ওই বাড়িতে গেলে প্রেমিকের মা, ভাই ও ফুফু তাকে মারধর করে। পরে স্থানীয় সাংবাদিকরা সেখানে গেলে শৈশব বালার বাবা-মা ও ভাই ঘরে তালা দিয়ে বাড়ি থেকে চলে যান।

ভুক্তভোগী তরুণী জানান, প্রায় দুই বছর আগে ফেসবুকে পরিচয় হয় তাদের। এরপর থেকেই দুজনের মধ্যে গভীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করে প্রেমিক। এতে ভুক্তভোগী তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। পরে বিয়ের কথা বলে জোর করে গর্ভপাত করান প্রেমিক শৈশব ও তার ফুফু যমুনা বালা। এরপর থেকেই আমাকে এড়িয়ে চলছেন শৈশব ও তার পরিবার।

ভুক্তভোগী তরুণী আরও বলেন, বিষয়টি জানাজানি হলে পারিবারিকভাবে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে শৈশবের পরিবারের কাছে যাই। তখন ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে বিয়ে না করার জন্য বিভিন্ন হুমকি দেওয়া হয়। প্রেমের সম্পর্ক হওয়ার আগে আমি শৈশবকে বলেছি। আমার আগে একটা বিয়ে হয়েছে। সবকিছু মেনে নিয়ে সে আমার সঙ্গে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে প্রেম করেছে। আমাকে বিয়ে না করলে, আমি আত্মহত্যা করব।

অভিযুক্ত শৈশবের ফুফু যমুনা বালা বলেন, এই যুগের ছেলে-মেয়েরা প্রেম করতেই পারে। এই মেয়ের আগে একটা বিয়ে হয়েছিল। আমাদের ছেলে কেন এই মেয়েকে বিয়ে করবে? এই মেয়ে একজন প্রতারক।

এদিকে শৈশব বালার মুঠোফোনে একাধিক বার ফোন করলেও তাকে পাওয়া যায়নি। পরিবারের দাবি-শৈশব কক্সবাজারের রামুতে আছে। নেট না থাকার কারণে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না।

সাবেক ইউপি সদস্য বাবুল জয়ধর জানান, অনশনকারী তরুণীর সঙ্গে শৈশবের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। এ বিষয়ে তরুণীর বাড়ি থেকে ১০ থেকে ১২জন লোকও গিয়েছিল। এ বিষয়ে অনেকবার সালিস হয়েছে। ওরা কাউকে মানে না।

ডাসার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাসানুজ্জামান বলেন, বুধবার সকালে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনা নিয়ে এখনও থানায় কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

সূত্র : আরটিভি

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles