5.2 C
Toronto
মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৯, ২০২২

দেশ ছেড়ে পালাতে চেয়েছিলেন জ্যাকলিন, অভিযোগ ইডির

দেশ ছেড়ে পালাতে চেয়েছিলেন জ্যাকলিন, অভিযোগ ইডির
জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ

মানি লন্ডারিং মামলায় বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ তাঁর জামিন আবেদনের চূড়ান্ত শুনানির জন্য আদালতে হাজির হয়েছেন। শনিবার (২২ অক্টোবর) অভিনেত্রী তাঁর জামিন আবেদনের প্রেক্ষিতে যুক্তি উপস্থাপন করতে দিল্লির পাতিয়ালা হাউজ আদালতে পৌঁছেছিলেন। এদিন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) জ্যাকলিনের জামিন আবেদনের প্রেক্ষিতে চমকপ্রদ তথ্য প্রকাশ করেছে। ইডির ভাষ্যমতে, জ্যাকলিন দেশ ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন!

পিটিআই-এর একটি প্রতিবেদন অনুসারে, ইডি জানিয়েছে যে অভিনেত্রী ভারত ছেড়ে পালাতে চেয়েছিলেন।

- Advertisement -

তবে তাঁর নাম লুকআউট সার্কুলারে থাকায় তিনি তা করতে পারেননি। আদালতকে ইডি আরও বলেছে যে, জ্যাকুলিন তাঁর মোবাইল ফোন থেকে ডেটা মুছে দিয়ে তদন্তের সময় প্রমাণ নষ্ট করার চেষ্টা করেছেন।

এদিকে, জ্যাকলিনের আইনজীবী প্রশান্ত পাতিল এই অভিযোগগুলো অস্বীকার করে বলেছেন যে, জ্যাকলিন সর্বদা তদন্ত সংস্থাগুলোর সঙ্গে সহযোগিতা করেছেন এবং আজ পর্যন্ত জারি করা সমনগুলোতে উপস্থিত ছিলেন। তিনি মামলা সংক্রান্ত সমস্ত প্রয়োজনীয় তথ্য ইডি’র কাছে হস্তান্তর করেছেন। সর্বোচ্চ সহযোগিতা করেছেন।

এদিন দিল্লির পাতিয়ালা হাউস আদালতে জ্যাকলিনের অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। এই মামলায় জ্যাকলিনের অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের মেয়াদ ১০ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে আদালত।

এর আগে সেপ্টেম্বরে, জ্যাকলিন মানি লন্ডারিং মামলায় দুইবার দিল্লি পুলিশের অর্থনৈতিক অপরাধ শাখায় হাজির হয়েছিলেন। জ্যাকলিনকে আট ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। চন্দ্রশেখরের সঙ্গে তাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া পিঙ্কি ইরানিকেও তলব করেছিল পুলিশ।

প্রসঙ্গত, এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) এর ২০০ কোটি টাকার অর্থ আত্মসাৎ মামলায় জ্যাকলিনের নাম রয়েছে। এই বছরের শুরুতে জ্যাকলিনকে মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে বেশ কয়েকবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। ফেডারেল তদন্ত সংস্থা সম্প্রতি দিল্লির একটি বিশেষ প্রিভেনশন অফ মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট (পিএমএলএ) আদালতে এই মামলায় নতুন চার্জশিট বা প্রসিকিউশন অভিযোগ দাখিল করেছে যেখানে এই অভিনেত্রীর নাম দেয়া হয়েছে। মামলার মূল অভিযুক্ত সুকেশ চন্দ্রশেখরের বিরুদ্ধে প্রায় ৩২টি মামলা দায়ের করেছে পুলিশসহ একাধিক কেন্দ্রীয় সংস্থা। যার মধ্যে সিবিআই, ইডি এবং ইনকাম ট্যাক্স ডিপার্টমেন্ট রয়েছে বলে জানা গেছে। গোড়ার দিকে জ্যাকলিনের নাম এই কাণ্ডে জড়ালেও সেভাবে উত্তেজনা ছড়ায়নি। তবে সুকেশের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই ফেঁসে গেছেন এই অভিনেত্রী।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles