20 C
Toronto
রবিবার, জুন ২৬, ২০২২

ডাগ ফোর্ডের দুই টার্ম

- Advertisement -
ডাগ ফোর্ডের দুই টার্ম
বিজয়ের পর ডগ ফোর্ড

কানাডাতে যখন প্রথম আসি, সেই ১৯৯৭ সালের কথা, তখন অন্টারিও প্রদেশে পিসি পার্টির মাইক হ্যারিস প্রিমিয়ার। ১৯৯৫ থেকে ২০০২ পর্যন্ত টানা দুবার কনজারভেটিভ পার্টি ক্ষমতায়। তখনো ফেডারেলে লিবারেল পার্টি আর প্রদেশে কনজারভেটিভ পার্টি। তারও দুবছর পর এই প্রদেশে ক্ষমতায় আসে লিবারেল পার্টি ২০০৩ থেকে ২০১৩। কাজেই এসব নুতন কিছু নয়। জনগণ কাউকে আজীবন ক্ষমতায় রাখেন না। ডাগ ফোর্ড দু টার্ম ভালভাবেই থাকবে।

এমনকি লিবারেল পার্টির ভাল ও ক্যারিশমেটিক একজন নেতা না এলে হয়তো তিন টার্মও থেকে যেতে পারেন। বিগত দুবছর করোনাকালীন সময়ে তিনি ফেডারেল প্রধানমন্ত্রী জাষ্টিন ট্রুডোর সাথে তেমন কোন কনফ্লিক্টে যান নি বরং সমান্তরালভাবে যোগ্যতার পরিচয় দিয়ে একটা ষ্টেইটম্যানশীপ বা রাষ্ট্রনায়কোচিত ভুমিকা রেখেছেন যা জনগণ মনে রেখেছে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই তিনি বিপুল বিজয় পেয়েছেন। সবচেয়ে বড় কথা প্রার্থীরা বার বার জনগণের কাছেই ফিরে গেছেন। কে কতবার ভোটারদের দরজায় টোকা দিয়েছেন সেটার হিসাব কষেই অনেক প্রার্থীর সময় কেটেছে।

কোন ষড়যন্ত্রের অভিযোগ উঠে নাই, তত্তাবধায়ক সরকারের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করতে হয় নাই, বিনাবাক্যে প্রার্থীরা ফলাফল মেনে নিয়েছেন। বরং পরাজিত দুটো পার্টি এনডিপি ও লিবারেল পার্টির দুই প্রধান নেতা সবাইকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানিয়ে নিজেদের ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে পদত্যাগ করার ঘোষণা দিয়েছেন। এর নাম গনতন্ত্র। গনতন্ত্রের বিজয় মানে জনগণের বিজয়, জনগণের কাছে দায়বদ্ধতা, অন্য কোন শক্তির কাছে নয়।

বাংলাদেশী দু প্রার্থীর একজন বিজয়ী হয়েছেন অপরজন ভাল ফাইট দিয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন। দুজনকেই অভিনন্দন। ডাগ ফোর্ড ও তার টিমকেও অভিনন্দন। নির্বাচন শেষ। আগামীকাল থেকে এই দেশের মানুষের কাছে, চা কফির দোকানে কিংবা অফিস আদালতে নির্বাচন নিয়ে তেমন কোন আলোচনাই আর থাকবে না, সবাই যার যার কাজে মনযোগী হবেন।
রাজনীতির প্রতিপক্ষ মানে শত্রু নয়, সাময়িক প্রতিদ্বন্দ্বী মাত্র। ভিন্নমত ভিন্নপথ আছে বলেই বহু দল এবং বহুদলীয় গনতন্ত্র টিকে আছে। গনতন্ত্রের এই অব্যাহত বিজয়ে সকলেই অংশীদার আর তাই বিজয়ী ও পরাজিত সকলকেই অভিনন্দন।

স্কারবোরো, অন্টারিও, কানাডা

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles