14.8 C
Toronto
রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২

হাড্ডাহাড্ডি প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে ট্রুডো

- Advertisement -
লিবারেল পার্টির নেতা জাস্টিন ট্রুডো

কানাডায় পরবর্তী নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল ২০২৩ সালে। কিন্তু আগস্ট মাসের মাঝামাঝিতে হুট করেই আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেন কানাডার প্রধামন্ত্রী ও লিবারেল পার্টির নেতা জাস্টিন ট্রুডো। উদ্দেশ্য পার্লামেন্টে নিরংকুশ সংখ্যা গরিষ্টতা অর্জন।

এর আগে ২০১৯ সালের ভোটে ৩৩৮ টি আসনের মধ্যে ট্রুডোর দল জয়ী হয় ১৫৫টিতে। এতে কোয়ালিশন সরকার গঠন করতে হয়। জোটের সরকার হওয়ায় অনেক সময় সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যা হতো। সংসদে আনা বিল বা প্রস্তাব আটকে যেত। এ অবস্থায় গত আগস্টে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেন জাস্টিন ট্রুডো।

ট্রুডোর জন্য নির্বাচন যতটা সহজ ভাবা হচ্ছিলো তা হচ্ছে না। যদিও সবগুলো প্রাক নির্বাচনী জরিপেই এগিয়ে আছেন জাস্টিন ট্রুডো। তবে তার প্রতিদ্বন্দ্বী এরিন ওতুলের কনজার্ভেটিভ পার্টির সঙ্গে ব্যবধান সামান্যই। জরিপের পূর্বাভাস বলছে ট্রুডোর লিবারেল পার্টি ৩২ শতাংশ এবং কনজার্ভেটিভ পার্টি ২৯ শতাংশ ভোট পেতে পারে । এছাড়া বামপন্থী এনডিপি পেতে পারে ২১ শতাংশ ভোট। তবে জার্নাল ডি মন্ট্রিল এবং ন্যাশনাল পোস্টের সবশেষ জরিপে লিবারেলের চেয়ে ১ শতাংশ এগিয়ে রাখা হয়েছে বিরোধী কনজার্ভেটিভদের। এতে কনজার্ভেটিভরা ৩৩ শতাংশ এবং লিবারেল পার্টি ৩২ শতাংশ ভোট পেতে পারে বলা হয়েছে।

এবারের নির্বাচনে ২ নারীসহ লড়ছেন ৮ বাংলাদেশীও।

করোনা পরিস্থিতিতে নির্বাচনের সিদ্ধান্তে প্রচন্ড সমালোচনার মুখে রয়েছেন লিবারেল পার্টির নেতা জাস্টিন ট্রুডো। তাকে লক্ষ্য করে নির্বাচনী প্রচার কালে পাথর নিক্ষেপের মত ঘটনাও ঘটেছে।

Related Articles

Latest Articles