22.9 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০২৪

পুতিনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার ‘অপরাধে’ অপেরা থেকে বাদ রুশ শিল্পী

পুতিনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার ‘অপরাধে’ অপেরা থেকে বাদ রুশ শিল্পী - the Bengali Times
রাশিয়ার অপেরাশিল্পী আনা নেত্রেবকো

রাশিয়ার অপেরাশিল্পী আনা নেত্রেবকোর ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদ! আমেরিকার মেট্রোপলিটন অপেরা (সংক্ষেপে মেট অপেরা)-র মঞ্চে এই সুপারস্টারকে আর দেখা যাবে না।

আগামী দুই মওসুমের অনুষ্ঠানের তালিকা থেকেই তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেট কর্তৃপক্ষ। প্রসঙ্গত, এই নামেই বেশি পরিচিত উত্তর আমেরিকার সবচেয়ে বড় ধ্রপদী সঙ্গীতের মঞ্চ- মেট্রোপলিটন অপেরা।

- Advertisement -

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর সমর্থক হওয়ার জেরেই যে আনার উপর কোপ পড়ল, তা-ই মনে করছেন অনেকে।

মেট-এর তরফ থেকেও তেমন ইঙ্গিত মিলেছে। তবে আনাকে বাদ দেওয়ার সরকারি কারণও খোলসা করেছেন মেট কর্তৃপক্ষ।

ইউক্রেনে যুদ্ধের উল্লেখ করে বৃহস্পতিবার একটি বিবৃতিতে ওই অপেরা সংস্থার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, পুতিনের সমর্থক কোনও শিল্পীকেই তারা আর মেট-মঞ্চে অনুষ্ঠান করতে দেবেন না।

বরাবরই পুতিনের সমর্থক হিসাবে পরিচিত আনা। ২০১২ সালের রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও পুতিনের হয়ে প্রচার করেছিলেন। এর দুবছর পর আবারও নিজের রাজনৈতিক অবস্থান স্পষ্ট করেন আনা।

২০১৪ সালে দোনেৎস্কের একটি অপেরা হাউসে আর্থিক সাহায্য করার অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল, ওই শহরের নিয়ন্ত্রক রাশিয়াপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পতাকা তুলে ধরেছেন আনা।

মেট-এর মঞ্চে গত ২০ বছর ধরে দুশোরও বেশি অপেরায় শ্রোতাদের মাতিয়েছেন আনা। তবে বিশ্বের অন্যতম অপেরাশিল্পীকে মেট শর্ত দিয়েছিল, ইউক্রেনে যুদ্ধের পর পুতিনের থেকে তার দূরত্ব বজায় রাখা বাঞ্ছনীয়।

মেট-এর শর্ত মানতে নারাজ আনা। তার পরই তাকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন মেট কর্তৃপক্ষ।

সংস্থার জেনারেল ম্যানেজার পিটার গেব সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘মেট এবং অপেরার জন্য অপূরণীয় ক্ষতি হল। মেট-এর ইতিহাসে অন্যতম সেরা শিল্পী আনা। তবে ইউক্রেনে যে ভাবে নিরীহ মানুষদের হত্যা করছেন পুতিন, তাতে আর কোনও উপায় ছিল না’।

শুধুমাত্র আমেরিকাতেই নয়। ইউক্রেনে যুদ্ধের পর বিশ্ব জুড়েই পুতিনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জোরালো হচ্ছে। খোদ পুতিনের দেশেই তার বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছেন হাজার হাজার নাগরিক।

২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেন আক্রমণের পর যুদ্ধবিরোধী স্লোগান, প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিছিল করেছেন মস্কো-সহ রাশিয়ার একাধিক শহরে। পুতিনের নিজের শহর সেন্ট পিটার্সবার্গে প্রতিবাদীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষও দেখেছে বিশ্ব।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে প্রতিবাদীদের কণ্ঠরোধ করারও অভিযোগ উঠেছে। ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরুর দুসপ্তাহের মধ্যেই ২ মার্চ পর্যন্ত রাশিয়া জুড়ে সাড়ে ছয় হাজারেরও বেশি প্রতিবাদীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিশ্ব জুড়ে রাশিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ঝড় উঠলেও ইউক্রেনের যুদ্ধ বন্ধ হচ্ছে না। যার ফলে রুশ শিল্পীকে সরতে হল আমেরিকান মঞ্চ থেকে।

 

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles