16.5 C
Toronto
শুক্রবার, অক্টোবর ৭, ২০২২

সৌদির রাস্তায় সাম্বা নাচের ঝড় তুললেন তিন তরুণী, ভিডিও ভাইরাল

- Advertisement -
সৌদির রাস্তায় সাম্বা নাচের ঝড় তুললেন তিন তরুণী, ভিডিও ভাইরাল - the Bengali Times
সাধারণত খোলামেলা পোশাকে নারীরা এই এই ড্যান্সে অংশ নেয়

সাম্বা ড্যান্স মানেই ব্রাজিল, যা ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী সংস্কৃতির অংশ। সাধারণত খোলামেলা পোশাকে নারীরা এই এই ড্যান্সে অংশ নেয়।

অন্যদিকে, সৌদি আরব রক্ষণশীল দেশ, যেখানে সাধারণ নারীদের পর্দায় থাকার বিধান জারি আছে। তবে এবার সেই সৌদির রাস্তায়ই হয়ে গেল সাম্বা নাচের ঝড়। তিন বিদেশি আফ্রিকান নারী ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী খোলামেলা পোশাকে এই সৌদির রাস্তায় সাম্বা নাচের ঝড় তুলেছেন।
এই নাচের ভিডিও গত সপ্তাহ থেকে সৌদির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। পরে অবশ্য প্রকাশ্যে এমন নাচ করায় সমালোচনা ঝড় উঠেছে।

সৌদি আরবের মোট জনসংখ্যার দুই তৃতীয়াংশের বয়স ৩০ এর নিচে। দেশটির উত্তরাধিকারী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটিতে বিভিন্ন ধরনের সংস্কার কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন। সৌদি আরব তাদের বিনোদন জগত বৈচিত্রপূর্ণ করার উদ্যোগ নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে বছরজুড়েই সৌদি আরবে গানের বিশাল কনসার্টসহ বিভিন্ন উৎসব ও খেলাধুলা অনুষ্ঠিত হয়। মূলত তেল নির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসতে ইউরোপ-আমেরিকার বিনিয়োগকারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্যই এই সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি দক্ষিণ সৌদির জাজান প্রদেশে শীতকালীন উৎসবে তিন বিদেশি নারী খোলামেলা পোশাক পরে রাস্তায় সাম্বা নাচ পরিবেশন করেন। এর একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

খবরে বলা হয়েছে, সাম্বা নাচ পরিবেশনকারী নারীরা ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী পালকের রঙ আকৃতির পোশাক পরেন। এই পোশাকে দুই পা, বাহু এবং পেট খোলা থাকে।

সৌদির রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন আল আখবারিয়া টিভি এই অনুষ্ঠানের ফুটেজ প্রচার করে। কিন্তু এতে ওই নারীদের ছবি ঝাঁপসা করে দেওয়া হয়।

সৌদিতে সাম্বা নাচের প্রতিক্রিয়ায় জাজানের বাসিন্দা বাজবি বলেন, উৎসব বিনোদনের জন্য, কিন্তু এটা ধর্ম ও সামাজিক নৈতিকতাকে আক্রমণের জন্য হওয়া উচিত নয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই ঘটনার জন্য দায়ীদের বিচারের মুখোমুখি করার দাবি উঠেছে। সমালোচনার মুখে জাজানের গভর্নর মোহাম্মদ বিন নাসের শনিবার ঘটনার তদন্ত এবং উৎসবের নামে এমন ধরনের অপব্যবহার বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া কথা বলেছেন।

ওদিকে, সমালোচক এবং মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো বলছে, ২০১৮ সালে সাংবাদিক জামাল খাশোগির নির্মম হত্যাকাণ্ড এবং দুর্বল মানবাধিকার রেকর্ড গোপন করার জন্য সৌদি আরব ক্রীড়া এবং বিনোদন অনুষ্ঠানকে ব্যবহার করছে।

Related Articles

Latest Articles