আগৈলঝাড়ায় বিল বোর্ড অপসারণে মাঠে নেমেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা
তপন বসু, বরিশাল
অ+ অ-প্রিন্ট
সকল রাজনৈতিক দলের অংশ গ্রহন মুলক অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার লক্ষ্যে আগৈলঝাড়ায় উপজেলা সদরের ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ অফিসের বিল বোর্ড অপসারণের মধ্য দিয়ে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা বাস্তবায়ন শুরু করেছেন সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস। 

সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সকল রাজনৈতিক দলের অংশ গ্রহন মুলক অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সকল দলের জন্য লেভেল প্লেইং ফিল্ড তৈরী করতে নির্বাচনের জন্য অভিপ্রায় ব্যক্ত করে বিভিন্ন প্রচারণার দ্রব্য বা সরঞ্জামাদি অপসারণের নির্দেশনা প্রদান করেছে নির্বাচন কমিশন।   সেই নির্দেশনা মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নের জন্য সকল রাজনৈতিক দলের প্রচার প্রচারনার ব্যানার, পোষ্টার, দেয়াল লিখন, বিলবোর্ড, গেইট, তোরণ, ঘের, প্যান্ডেল, আলোকসজ্জা ইত্যাদি বা প্রচার সামগ্রী বা দ্রব্যাদি অপসারণের জন্য ১৮নভেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বেধে দিয়ে ১৪ নভেম্বর রিটার্নিং অফিসার পত্র ইস্যূ করেন। ওই পত্র সকল রাজনৈতিক দলের প্রধানদের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়। নির্দ্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে নির্বাচনী প্রচালনায় ব্যবহৃত উল্লেখিত দ্রব্যাদি সকল অপসারণ না করায় গতকাল সোমবার (১৯.১১.১৮) সকালে আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে তা অপসারণের জন্য অভিযান পরিচালনা করেন সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস। 

দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিল বোর্ড অপসারনে সত্যতা স্বীকার করেন জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত। 

অভিযানের শুরুতেই প্রথমেই আওয়ামীলীগ দলীয় কার্যালয়ের সামনের বিল বোর্ড অপসারণ করেন তিনি। এছাড়াও উপজেলা সদরের বিভিন্ন স্থান, গৈলা বাজার, পয়সারহাট এলাকাসহ আগৈলঝাড়া-গোপালগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানের অবৈধ প্রচারণা সামগ্রী অপসারণ করেন। এসময় আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর বিভিন্ন অবৈধ প্রচারনা অপসারণ করার কথা জানান তিনি। 

তিনি আরও জানান, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি ডিসেম্বর মাসের ৯ তারিখের আগে কোন প্রচারণা করা যাবে না।     

অভিযানে উপজেলা বিভিন্ন স্থানের পোষ্টার, দেয়াল লিখন, বিল বোর্ড, ব্যানার, অপসারণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাইদুর রহমান, ওসি (তদন্ত) মো. নকীব আকরাম। 

 

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ১১:১১:১৩