আচার ভেবে ইয়াবা নিয়ে সৌদি আরব : আপিলেও ২০ বছর জেল ‘নির্দোষ’ বাশারের

- Advertisement -

 

‘নির্দোষ’ স্বামীর মুক্তির জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন আবুল বাশারের স্ত্রী মোছাম্মত রাবেয়া

আপিলেও মুক্তি মিলল না ‘নিজের অজান্তে বহন করা’ ইয়াবা নিয়ে সৌদি আরবে ধরা পড়া আবুল বাশারের। বাংলাদেশের পুলিশের তদন্ত অনুযায়ী, ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তার ব্যাগে পরিচ্ছন্নতাকর্মী আচার বলে ইয়াবা ঢুকিয়ে দিয়েছিল। তা নিয়ে সৌদিতে ধরা পড়ে ২০ বছরের জেল হয় আবুল বাশারের। সোমবার আপিল আদালত সেই সাজা বহাল রেখেছেন।

- Advertisement -

‘নির্দোষ’ স্বামীর মুক্তির জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন বাশারের স্ত্রী মোছাম্মত রাবেয়া। ধরনা দেন প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে। তার আবেদনে মন্ত্রণালয় প্রায় সাত লাখ টাকায় সৌদি আইনজীবী নিয়োগ করে। তাতেও ফল হয়নি।

সৌদির বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম সোমবার স্বাক্ষরিত চিঠিতে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোকে জানিয়েছেন, আপিল আদালত নিম্ন আদালতের সাজা বহাল রেখেছেন। সৌদির আইনজীবীর মাধ্যমে আবুল বাশারের পক্ষে রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করার প্রস্তুতি চলছে।

- Advertisement -

চার মাসের ছুটি শেষে গত ১১ মার্চ রাতে কর্মস্থলে ফিরে যাচ্ছিলেন বরিশালের আবুল বাশার। বিমানবন্দরে সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, বিমানবন্দরের পরিচ্ছন্নতার দায়িত্ব পাওয়া প্রতিষ্ঠান একে ট্রেডার্সের সুপারভাইজার নুর মোহাম্মদ একটি প্যাকেট আবুল বাশারের ব্যাগে ঢুকিয়ে দেয়। নুর মোহাম্মদকে শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ। কিন্তু চার দিন পর জামিনে ছাড়া পেয়েছে নুর মোহাম্মদ।

- Advertisement -

১১ বছর সৌদিতে থাকেন আবুল বাশার। স্বামীকে ফিরে পেতে মামলার এজাহারে রাবেয়া অভিযোগ করেছেন, ১১ মার্চ রাত সাড়ে ১২টার দিকে বাশার বোর্ডিং পাস নিয়ে মালপত্র তোলার লাইনে ছিলেন; তখন এক ব্যক্তি তাকে ‘আচারের’ একটি প্যাকেট নিতে অনুরোধ করে। বাশার নিতে অস্বীকৃতি জানালে ওই ব্যক্তি নিজেকে বিমানবন্দরের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে হুমকি দেয়- প্যাকেট না নিলে বিমানে উঠতে দেওয়া হবে না।

সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, জোরাজুরির এক পর্যায়ে নুর মোহাম্মদ নিজেই বাশারের ব্যাগের চেইন খুলে প্যাকেটটি ব্যাগে ঢুকিয়ে দেয়। রাবেয়া জানান, ১২ মার্চ অজ্ঞাত এক ব্যক্তি তাকে ফোন করে জানতে চায়, আগের রাতে তার স্বামীকে একটি প্যাকেট দেওয়া হয়েছে, তা সৌদিতে পৌঁছেছে কিনা। পরের তিন সপ্তাহ আবুল বাশারের খবর পাননি রাবেয়া। এপ্রিলের প্রথম দিকে জেল থেকে তার স্বামী ফোন করে জানান, ইয়াবাসহ তাকে ধরা হয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles