ফাঁস হওয়া সেই অডিও ক্লিপের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিলেন কাটাখালীর মেয়র

- Advertisement -

গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের রেশ কাটতে না কাটতেই এবার রাজনীতির মাঠ তোলপাড় রাজশাহীর কাটাখালী পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্বাস আলীর ফাঁস হওয়া এক অডিও ক্লিপ নিয়ে।

- Advertisement -

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপনকে কেন্দ্র করে এই আওয়ামী লীগ নেতা কটূক্তি করেছেন, গত রোববার থেকে ফেসবুকে এমন একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল।

বিষয়টি নিয়ে চলমান তুমুল বিতর্কের মধ্যেই সেই অডিও ক্লিপ নিয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন মেয়র আব্বাস আলী। ১ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের ওই অডিও এডিট করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

- Advertisement -

সন্ধ্যায় নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে গত ২৯ মের দুটি ভিডিও সংবলিত নিজের পোস্ট শেয়ার করে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল এবং আমার কিছু কথা’ শিরোনামে ব্যাখ্যাটি দেন তিনি।

- Advertisement -

মেয়র আব্বাস আলী লিখেছেন, ‘গতকাল থেকে কিছু সংবাদমাধ্যম এবং ফেসবুকে আমার কথোপকথনের একটি অডিও ব্যাপকভাবে প্রচার করা হচ্ছে। অডিওটি সবাই মনোযোগ দিয়ে শুনুন, আপনারা বুঝতে পারবেন, অডিওটি এডিট করে তৈরি করা হয়েছে।আমি কখনো কারও সামনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালসহ গেট নির্মাণ করা হবে না কিংবা কেউ ম্যুরাল নির্মাণ করলে বাধা দেয়া হবে, এ রকম কথা কারও সামনে কখনো বলিনি। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করি এবং মমতাময়ী জননী বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার দেখানো পথে একজন সাধারণ কর্মী হয়ে পৌরসভার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি।’

পোস্টের শুরুতে আব্বাস আলী লিখেছেন, ‘গত ২৯ মে আমার ফেসবুক আইডি থেকে কাটাখালী পৌরসভার প্রবেশদ্বারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালসহ গেট নির্মাণ করা হবে মর্মে (ভিডিও) আপলোড দিয়েছিলাম। গেট নির্মাণের জন্য সকল প্রস্তুতি চলছিল। কিন্তু ঢাকা টু রাজশাহী মহাসড়ক দুই লেন থেকে চার লেনে উন্নীত করার কাজ চলমান থাকায় গেটটি নির্মাণ সাময়িকভাবে বন্ধ আছে। চার লেন রাস্তা নির্মাণের জন্য মহাসড়কের দুই ধারে কতটুকু জায়গা বাড়ছে, সেটা নিশ্চিত হওয়ার পরে আশা করছি আগামী বছরের জানুয়ারি–ফেব্রুয়ারিতে পুনরায় গেট নির্মাণের প্রস্তুতি শুরু করতে পারব ইনশা আল্লাহ।’

উল্লেখ্য, নৌকা প্রতীক নিয়ে কাটাখালীর পৌরসভা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্বাস আলী দুবার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যও তিনি।

রোববার রাতে তার সেই ফাঁস হওয়া অডিওতে শোনা যায়- ‘জীবন দিয়ে হলেও বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল বসাতে দেওয়া হবে না।’ এ ঘটনায় রাজশাহীজুড়ে আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী ও প্রগতিশীল মহলে ক্ষোভ এবং অসন্তোষ বিরাজ করছে।

আওয়ামী লীগ থেকে মেয়র আব্বাসকে অবিলম্বে বহিষ্কার এবং মেয়র পদ থেকে অপসারণের দাবি উঠেছে। আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা বলেন, পারিবারিকভাবেই আব্বাস বিতর্কিত। এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে তিনি চরম ধৃষ্টতা দেখিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু ও অসাম্প্রদায়িক চেতনায় তিনি কুঠারাঘাত করেছেন।

সূত্র: যুগান্তর

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles