17.2 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪

পালিয়ে বিয়ে করায় যুবকের নাক কেটে দিল

পালিয়ে বিয়ে করায় যুবকের নাক কেটে দিল
প্রতীকী ছবি

পরিবারের অমতে যুবতীর সঙ্গে পালিয়ে বিয়ে করেছিলেন এক যুবক। সেই ক্ষোভে যুবককে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার কথা বলে নির্যাতনের পর নাক কেটে দেয় যুবতীর ভাইয়েরা।

ভারতের রাজস্থানের পালি-যোধপুর হাইওয়েতে এমন ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এই ঘটনায় যুবতীর পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছে যুবকের পরিবার।

- Advertisement -

জানা যায়, আক্রান্ত যুবকের নাম চেলরাম তক (২৩)। তারা দুজনেই যোধপুরের ঝাঁওয়ার গ্রামের বাসিন্দা। বেশ কয়েক বছর ধরেই তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। কিন্তু, পরিবারের আপত্তি থাকায় গত মার্চ মাসে তারা পালিয়ে বিয়ে করেন। এরপর থেকে তারা দুজনে ইন্দিরা নগরে একটি ঘর ভাড়া নিয়ে থাকতে শুরু করেন।

গতকাল শুক্রবার যুবতীর পরিবারের লোকজন তাদের ভাড়া বাড়িতে যায়। সেখানে গিয়ে তারা জানান, তাদের বিয়ে মেনে নিয়েছেন। এখন তাদের আর কোনও আপত্তি নেই। এই বলে নবদম্পতিকে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন যুবদীর ভাইয়েরা।

শ্বশুরবাড়ির লোকদের রাগ ভেঙে যাওয়ায় নবদম্পতি খুশি হয়ে তাদের অনুরোধে আপত্তি জানাননি। পরে যুবতীর পরিবার দুজনকে তাদের গাড়িতে করে নিয়ে যায়। এরপর গাড়িটি গ্রামের কাছাকাছি যাওয়ার পরই বিপত্তি ঘটে। মাঝরাস্তায় হঠাৎ গাড়ি থামিয়ে যুবককে বেধড়ক মারধর করা শুরু করেন। এরপর তার নাক কেটে সেখানে ফেলে দিয়ে যুবতীকে নিয়ে চলে যান।

বিষয়টি জানার পরে যুবকের পরিবারের লোকজন সেখানে পৌঁছে যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

পুলিশ কর্মকর্তা জানান, যুবতীর দুই ভাই সুনীল ও দীনেশসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অপহরণ ও মারধরের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই যুবক যোধপুরের এমজি হাসপাতালে ভর্তি আছে। এই ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles