12.9 C
Toronto
রবিবার, মে ২৬, ২০২৪

‘টয়লেটে যাব’ বলে গয়না নিয়ে বিয়ের আসর থেকে পালালেন কনে

‘টয়লেটে যাব’ বলে গয়না নিয়ে বিয়ের আসর থেকে পালালেন কনে
প্রতীকী ছবি

বিয়ের মঞ্চে হঠাৎ করে টয়লেটে যাওয়ার কথা বলেন পাত্রী। এরপর অনেক সময় পার হয়ে গেলেও আর মণ্ডপমুখো হয়নি পাত্রী। অভিযোগ উঠেছে, পালিয়ে যাওয়ার সময় পাত্রী টাকা এবং সোনার গয়না নিয়ে যান। ঘটনাটি ভারতের কানপুরের।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ঝাঁসির নাইকাইরার বাসিন্দা খালাক সিং পেশায় একজন ট্রাক চালক। ২০২৩ সালের ডিসেম্বরে কানপুরের ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন অফিসে বিয়ের জন্য নিবন্ধন করেন। এরপর ওই অফিস থেকে খালাককে ফোন করেন এক নারী। তিনি খালাককে রেজিস্ট্রেশনের জন্য ২৫ হাজার রুপি জমা দিতে বলেন। এরপর বিভিন্ন মেয়ের তথ্য দিয়ে তার কাছ থেকে বারবার টাকা নেওয়া হয়।

- Advertisement -

খালাকের অভিযোগ, এখন পর্যন্ত ওই ম্যারেজ ব্যুরোকে এক লাখ রুপির মতো দিয়েছেন। চলতি বছরের ১০ এপ্রিল ওই ম্যারেজ ব্যুরোর অপারেটর নেহা খালাককে প্রিয়া ভার্মা নামে একটি মেয়ের তথ্য দেয় এবং তার সঙ্গেই খালাকের বিয়ের কথা বলা হয়। বিষয়টি জেনে বিয়ের প্রস্তুতি নেন খালাক। এরপর নির্ধারিত তারিখে বড়দেবী মন্দিরে পৌঁছায় দুইপক্ষ। সেখানেই শুরু হয় বিয়ের অনুষ্ঠান। খালাক তার হবু স্ত্রীকে লক্ষাধিক টাকার গয়না দিয়েছিলেন।

অভিযোগ উঠেছে, সাত পাকের ঠিক আগেই আচমকা টয়লেটে যাওয়ার কথা বলেন কনে। কিন্তু তারপর আর ফেরেননি। চিন্তায় পড়ে যান খালাক। একপর্যায়ে কন্যাপক্ষ প্রিয়া ভার্মার সন্ধানে যায়। পরে বোঝা যায় পুরোটাই প্রতারণার জাল। কারণ কনেকে খুঁজতে গিয়ে আর ফিরে আসেনি কেউ। প্রতারণার শিকার হয়ে খালাক থানার দ্বারস্থ হয়েছেন।

দক্ষিণ কানপুরের ডিসিপি রবীন্দ্র কুমার বলেছেন, খালাক সিংয়ের অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেই অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles