21.7 C
Toronto
মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০২৪

আপনি কতোটা সভ্য!

আপনি কতোটা সভ্য!
আপনি কতোটা সভ্য

আমরা মানুষ। ফেরেশতা না। আমাদের ভুল হতেই পারে। কাজেকর্মে, কথা বলায়, লেখায়-পড়ায়, বলায়-শোনায়। সবখানেই ভুল হতে পারে। ভুলের ঊর্ধ্বে কেউ আছে এমনটা খুবই কম হতে পারে বা নাও হতে পারে।

এক জন মানুষের মতামতের সঙ্গে আরেক জন মানুষের মতের মিল নাও হতে পারে এটাই স্বাভাবিক। যখন একটা বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয় তখন সেটা কতোটা যুক্তিযুক্ত তা নিয়ে অবশ্যই আলাদা আলাদা মতামত থাকতে পারে। বা একই বিষয়টা একেক জনের কাছে একেক রকম ব্যাখ্যা থাকে।

- Advertisement -

আপনি যদি কারোর মতামতের বিপক্ষে আপনার মতামত তুলে ধরতে চান আপনি অবশ্যই সেটা করতে পারেন। তবে কীভাবে? আপনি তুলে ধরতে পারেন আপনি কী ভাবছেন সেটা। সেটা কীভাবে আরো গ্রহণযোগ্য বা নিরেট তার কিছু উদাহরণও আপনি দিতে পারেন। এটাই একটা সভ্য পদ্ধতি কারোর মতামতের সঙ্গে নিজের মতামতের পার্থক্যটা বোঝানো।

তাছাড়া কোনো একটা বিষয় নিয়ে আপনি যখন অন্যেরটা ভুল প্রমাণ করতে চাইবেন তখন অবশ্যই আপনি ভেবে নিন আপনারটার সারমর্ম ঐ একই কিনা! বা কতোটুকু পার্থক্য রয়েছে।

কিন্তু কেউ যদি এসে ডাইরেক্ট ‘F’ word দিয়ে পোস্টদাতাকে সম্বোধন করে মুখে যা ইচ্ছে তাই বলতে থাকে সেটা কি কোনো সভ্যতার আওতায় পড়ে?

একটা কথা আছে ‘ব্যবহার বংশের পরিচয়’। এই কথাটা অনেকটাই সত্য। আপনি পৃথিবীর যত উন্নত দেশেই থাকুন না কেন, আর যতই চুল-জামাকাপড়-জুতার স্টাইল বদলান না কেন আপনি যদি সভ্য না হন আপনার মুখ ফুটে বেরিয়ে আসবে অ*সভ্য আচারণ। মানুষ যেকোনো দুর্গন্ধ সরাতে বিভিন্ন উপাদান ব্যবহার করে।

কিন্তু আপনি কোনোভাবেই এই অসভ্য আচরণে পারফিউম মেরে সরাতে পারবেন না। এটা আপনার চরিত্রের মধ্যে পার্মানেন্ট রেসিডেন্স পেয়েছে।

আমার পেইজে এমন অসভ্য মানুষের সংখ্যা খুবই কম আলহামদুলিল্লাহ। এসব অ*সভ্য আচরণের মানুষকে দেখা মাত্রই পেইজ থেকে সরিয়ে দিই। ‘দুষ্টু গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল” থাকা ভালো।

গতকাল এক জন কমেন্ট করেছিলেন। তিনি থাকেন কানাডার Newfoundland and Labradorএ। তিনি সম্বোধনটাই করেছেন অত্যন্ত নিকৃষ্ট word দিয়ে। ওনার কমেন্টের মূল বক্তব্য হলো, আমি কেন নিজের বিষয়ে লিখি বা এ ধরণের কিছু।

আমি তার উত্তর দিতে পারতাম। কিন্তু না। দেই নি। কারণ কুকুরের লেজ পাইপের মধ্যে ঢুকালেও পাইপ লেজের আকৃতি হয়ে যাবে। তাই ওনি যেন আমার আর কোনো পোস্ট না দেখেন তার ব্যবস্থা নিয়েছি। যদি উনি আমার একনিষ্ঠ ফলোয়ার হন তাহলে অন্য আইডি দিয়ে পোস্ট দেখতে পারেন। সেখানে আমার কিছু করার নেই।

যাই হোক, দেখুন এই এক জন কানাডায় থাকেন। কানাডা তো বিশ্বের একটা উন্নত দেশ। কিন্তু তার আচরণ কি পাল্টে গেছে উন্নত দেশে থেকে? না।

এখন তো আপনারা বলবেন, আপনি দুই-একটা মানুষের সঙ্গে সবার মেলাচ্ছেন কেন?

শোনেন, ভাত রান্না করলে ঐ ভাত নরম হয়েছে কিনা আপনি কি সব ভাত টিপে দেখবেন? একটা টিপতে হয়।

যাদের যথাযথ শিক্ষা নেই তারা এমনটা করবেই। সবার কথা আপনার জানা নাও থাকতে পারে। আর শিক্ষা শুধু স্কুলেই গেলেই শেখা যায় না। এটা ব্যক্তির মধ্যে জন্মগতভাবে থাকে।

যারা ইউনিভার্সিটি থেকে পড়াশোনা করছে, বা এডুকেশন আছে, যথেষ্ট স্মার্ট তারা চেষ্টা করলে কানাডায় কাজ করতে পারবে দেরি হলেও। প্রত্যেকটা স্টুডেন্টের নাম ধরে বলা লাগবে না।

কাজেই কিছুটা দিয়ে বোঝা যায় পরিস্থিতির গতি।

আপনি সভ্য কিনা তা একবার ভাবুন কীভাবে ও কী বাক্য দিয়ে মানুষের সঙ্গে মতের বিনিয়য় করছেন।

টরন্টো, কানাডা।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles