20.9 C
Toronto
মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০২৪

মৃত ভেবে লাশের সারিতে রাখা হয়েছিল সোনিয়াকে

মৃত ভেবে লাশের সারিতে রাখা হয়েছিল সোনিয়াকে
সংগৃহীত ছবি

মৌলভীবাজারের জুড়ীতে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে ঘরের ওপর পড়ে ঘটস্থলেই একই পরিবারের ৫ জনের মৃত্যু হয়। আজ ভোরে পরিবারের শেষ সদস্য ১২ বছরের শিশু সোনিয়ার মৃত্যু হয়।

মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় ফয়জুর রহমান (৫০), তার স্ত্রী শিরি বেগম (৪৫), তাদের মেয়ে সামিয়া (১৫), সাবিনা (৯) এবং ছেলে সায়েম উদ্দিন (৭) ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। মৃত ভেবে ফয়জুর-শিরি দম্পতির আরেক মেয়ে সোনিয়া আক্তারকে (১২) রাখা হয়েছিল মরদেহের সারিতে। ঘণ্টাখানেক পর সোনিয়ার শ্বাস-প্রশ্বাস বুঝতে পেরে দ্রুত তাকে নিয়ে যাওয়া হয় মৌলভীবাজার জেলা হাসপাতালে। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

- Advertisement -

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) দিনভর নিবিড় পর্যবেক্ষণে ছিল সোনিয়া। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, তার শরীরের ২৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। হার্টেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) রাত ১০টায় স্বজনরা অ্যাম্বুলেন্সযোগে তাকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। বুধবার (২৭ মার্চ) ভোরে ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়ার পর মৃত্যু হয় তার।

সোনিয়া স্থানীয় ইন্তাজ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী। তার মারা যাওয়া বোন সামিয়া নবম শ্রেণিতে এবং সাবিনা চতুর্থ শ্রেণিতে পড়তো।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles