18.5 C
Toronto
সোমবার, জুলাই ২২, ২০২৪

চিরকুটে যে ‘কথাটি’ লিখে জীবন দিলেন নববধূ

চিরকুটে যে ‘কথাটি’ লিখে জীবন দিলেন নববধূ

বরিশাল নগরীতে বিয়ের দেড় মাসের মাথায় স্বামী ও শাশুড়ির নির্যাতন সইতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন সাদিয়া আক্তার নামে এক নববধূ। এ সময় সাদিয়ার লাশের পাশে তার লেখা একটি চিরকুট পাওয়া গেছে।

- Advertisement -

বুধবার ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে, মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে নগরীর ৩ নম্বর ওয়ার্ডস্থ মতাসার এলাকার বেপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নববধূর সাদিয়া আক্তার পুরানপাড়া এলাকার মাহফুজ আলমের মেয়ে।

জানা গেছে, গত ২৪ জানুয়ারি সদর উপজেলার রায়পাশা-কড়াপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা মুদি দোকানি মো. রুবেলের সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়েছিল তার। বিয়েতে মেয়েকে স্বর্ণালংকার এবং জামাইকে ফ্রিজ, গলার চেইন ও আংটি দেওয়া হয়। এতে আট লাখ টাকা খরচ হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে পরিবারের সবার অজান্তে বাবার বাড়ির ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই তরুণী। খবর পেয়ে লাশ উদ্ধারের পর শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। বুধবার ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

চিরকুটে সাদিয়া লিখেছেন, ‘আমি কী দোষ করেছিলাম, এমন একজন মানুষের জন্য নিজের জীবনটাই শেষ করে দিলাম। প্রত্যেক রাতে ডিভোর্স দেওয়ার জন্য জ্বালায়। আমাকে বিয়ে দিয়েছিলে কেন। আমি তোমাদের কাছে বোঝা? টাকা চাইলে তো মন পাওয়া যায় না। টাকা দিয়ে কী ভালোবাসা পাওয়া যায়। আমি তোমাদের কষ্ট দিতে চাই না বাবা-মা। আমি একটু সুখ চাই।’

স্থানীয় কাউন্সিলর সৈয়দ হাবিবুর রহমান বলেন, আট লাখ টাকা খরচ করে মেয়েটিকে বিয়ে দিয়েছিল পরিবার। পরবর্তীতে বিদেশ যাওয়ার জন্য তিন লাখ টাকা দাবি করে রুবেল। ওই টাকার জন্য মেয়ের বাবাকে রুবেলের বাড়িতে ডেকে নিয়ে মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে যেতে বলেছিল। দুই পরিবারের আত্মীয়-স্বজন এবং প্রতিবেশীর মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরেছি। রুবেলের নির্যাতনের কারণেই মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় রুবেলের কঠোর বিচার হওয়া উচিত।

বরিশাল মেট্রোপলিটনের কাউনিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, দুইদিন আগে সাদিয়ার বাবাকে খবর দিয়ে নেয়া হয় রুবেলের বাড়িতে। এরপর মেয়েকে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয়। এমনকি ওই বাড়িতে আবার আসতে হলে তিন লাখ টাকা দাবি করে রুবেল। এ কারণে ক্ষোভে সাদিয়া আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। তার লেখা চিরকুট উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

সূত্র : ডেইলি বাংলাদেশ

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles