16.1 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪

বিদেশি শিক্ষার্থী ভর্তি সীমিত করায় আর্থিক ক্ষতির মুখে অন্টারিওর বিশ্ববিদ্যালয়

বিদেশি শিক্ষার্থী ভর্তি সীমিত করায় আর্থিক ক্ষতির মুখে অন্টারিওর বিশ্ববিদ্যালয়
অভিবাসনমন্ত্রী মার্ক মিলার ২২ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী কর্মসূচির ওপর নতুন সীমার ঘোষণা দেন আগের বছর যে সংখ্যক স্টাডি পারমিট দেওয়া হয়েছিল তা ৩৫ শতাংশ কমানোর ঘোষণা দেন তিনি

আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী ভর্তির সর্বোচ্চ সীমা আরোপ পোস্ট-সেকেন্ডারি শিক্ষার দুষ্টু প্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি দায়িত্বশীল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকেও শাস্তি দেওয়ার সামিল বলে মন্তব্য করেছে কাউন্সিল অব অন্টারিও ইউনিভার্সিটিজ। একে অন্যায্য বলেও দাবি করেছে তারা।

সংগঠনটির প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) স্টিভ ওরসিনি ফেডারেল সরকারের প্রতি এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন। আগামী দুই বছরের জন্য স্টাডি পারমিটের সংখ্যার সর্বোচ্চ সীমা বেঁধে দিয়েছে ফেডারেল সরকার।

- Advertisement -

তিনি বলেন, অনেক বিশ^বিদ্যালয়েরই বর্তমানে আর্থিক অবস্থা সঙ্গীন। এই অবস্থায় আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী ভর্তির সর্বোচ্চ সীমা বেঁধে দিলে তা বিশ^বিদ্যালয়গুলোর বাজেটের ওপর বাড়তি চাপ তৈরি করবে। আমরা মনে করি আরও বেশি লক্ষ্যভেদী ও পরিশীলিত ভঙ্গিই হবে উন্নত নীতি এবং ভালো প্রতিষ্ঠানগুলোকে ক্ষতির মুখে ফেলবে না। এসব প্রতিষ্ঠান পরিচালনার জন্য আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের টিউশন ফির ওপর অনেকটাই নির্ভরশীল।

অভিবাসনমন্ত্রী মার্ক মিলার ২২ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী কর্মসূচির ওপর নতুন সীমার ঘোষণা দেন। আগের বছর যে সংখ্যক স্টাডি পারমিট দেওয়া হয়েছিল তা ৩৫ শতাংশ কমানোর ঘোষণা দেন তিনি।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীর সংখ্যা ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে প্রয়োজনীয় আবাসন ও মানসম্পন্ন শিক্ষার ব্যবস্থা ছাড়াই অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তাদের রাজস্ব বাড়ানোর জন্য যে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী ভর্তির ওপর নির্ভর করছে সেটাও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে এক্ষেত্রে।

কাউন্সিলের তথ্য অনুযায়ী, অন্টারিওর অন্তত ১০টি বিশ^বিদ্যালয় চলতি বছর সাকল্যে ১৭ কোটি ৫০ লাখ ডলার পরিচালন ঘাটতির পূর্বাভাস দিয়েছে। পরের বছর তা বেড়ে দাঁড়াবে ২৭ কোটি ৩০ লাখ ডলারে। রাজস্ব ঘাটতি পূরণে অন্য কোনো পদক্ষেপ না নিলে নতুন ঘোষিত সীমা আরোপ এই ঘাটতি আরও বাড়িয়ে দেবে।

ওরসিনি বলেন, ফেডারেল সরকারের এক্ষেত্রে আরও সতর্ক ভঙ্গি নেওয়া উচিত এবং যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের প্রতি দায়িত্ব পালন করছে না তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles