সশস্ত্র বাহিনীর যৌন নিপীড়ন মামলা বেসামরিক কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর

- Advertisement -
কানাডার ইতিহাসে দ্বিতীয় নারী প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের ঠিক এক সপ্তাহ পর এ ঘোষণা দিলেন অনীতা আনন্দ

সশস্ত্র বাহিনীতে যৌন অসদাচরণের মামলাগুলো তদন্ত ও পরিচালনার ভার বেসামরিক কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরের ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারকের পরামর্শ গ্রহণ করেছেন অনীতা আনন্দ। কানাডার নতুন প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে এটাই তার প্রথম পদক্ষেপ।

কানাডার ইতিহাসে দ্বিতীয় নারী প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের ঠিক এক সপ্তাহ পর এ ঘোষণা দিলেন অনীতা আনন্দ। তার এ ঘোষণা আশার সঞ্চার করলেও দীর্ঘদিন ধরে যারা সশস্ত্র বাহিনীকে পুলিশের কাজ থেকে বিরত রাখার দাবি জানিয়ে আসছিলেন তারা এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

- Advertisement -

অনীতা আনন্দের পূর্বসূরি হারজিত সজ্জনের কাছে গত মাসে সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারক লউস আরবারের চিঠি লেখার খবরটি বৃহস্পতিবার প্রথম প্রকাশ করে দ্য কানাডিয়ান প্রেস। চিঠিতে তিনি সেনাবাহিনীতে যৌন অসদারণ সংক্রান্ত ফৌজদারি মামলাগুলো বেসামরিক কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরিচালনার আহ্বান জানান।

কানাডিয়ান প্রেসে খবরটি প্রকাশের পরপরই অনীতা আনন্দ সশস্ত্র বাহিনীতে যৌন অসদাচরণের মামলাগুলোর তদন্ত ও বিচার বেসামরিক কর্তৃপক্ষের হাতে দেওয়ার ব্যাপারে আরবারের পরামর্শ গ্রহণ করার কথা টুইটারে ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, অন্তবর্তী এসব সুপারিশ বাস্তবায়নের জন্য কানাডার সশস্ত্র বাহিনী ফেডারেল, প্রাদেশিক ও আঞ্চলিক অংশীজনদের সঙ্গে কাজ করছে।

- Advertisement -

প্রতিরক্ষামন্ত্রীর এ ঘোষণাকে সতর্কতার সঙ্গে আশাব্যঞ্জক বলে উল্লেখ করেছে ‘ইট’স নট জাস্ট ৭০০’ নামে একটি সংগঠন, যারা ভুক্তভোগীদের সহায়তা দিয়ে আসছে। তারা বলছে, শব্দগুলো শুনতে ভালো। কিন্তু মূল বিষয় হলো কাজ।

- Advertisement -

কনজার্ভেটিভ ডিফেন্স ক্রিটিক জেমস বেজান এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট সময়সীমার দাবি জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণে লিবারেল সরকার কেন এতো দেরি করলো সে প্রশ্ন তুলেছেন এনডিপির লিন্ডসে ম্যাথিসেন। মুপ্রিম কোর্টের আরও দুজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিও যে একই সুপারিশ করেছিলেন সে বিষয়টিও উল্লেখ করেন তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles