21.9 C
Toronto
শনিবার, জুন ২২, ২০২৪

সর্বনাম বিল পাস করছে সাস্কেচুয়ান

সর্বনাম বিল পাস করছে সাস্কেচুয়ান
চূড়ান্ত ভোটাভুটির পর সাস্কেচুয়ানের মেয়র স্কট মো বলেন সন্তানদের শিক্ষা ও তাদের জীবনেরর সঙ্গে জড়িত থাকা বাবা মায়ের অধিকার

স্কুল শিক্ষার্থীদের সর্বনাম ব্যবহারের ওপর আনা বিতর্কিত একটি বিল সাস্কেচুয়ান আইনসভায় চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছে। এর মধ্যে দিয়ে ২০ অক্টোবর এটি আইনে রূপ পেয়েছে।

এই আইনের ফলে ১৬ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থীরা বাবা-মায়ের সম্মতি ব্যতিরেকে স্কুলে তাদের পছন্দের নাম বা সর্বনাম গ্রহণ করতে পারবে না। সাস্কেচুয়ান দলীয় সরকার আইনটি পাসের জন্য আইনসভায় বিশেষ অধিবেশন ডাকে। সেই সঙ্গে চার্টার অব রাইটস অ্যান্ড ফ্রিডমস ও সাস্কেচুয়ানের মানবাধিকার কোডের কিছু ধারা স্থগিত রাখতে নটউইতস্ট্যান্ডিং ক্লজ ব্যবহার করে।

- Advertisement -

চূড়ান্ত ভোটাভুটির পর সাস্কেচুয়ানের মেয়র স্কট মো বলেন, সন্তানদের শিক্ষা ও তাদের জীবনেরর সঙ্গে জড়িত থাকা বাবা-মায়ের অধিকার।

সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছে, অধিকাংশ স্কুলে চালু থাকা নীতি কাঠামোবদ্ধ করবে এই আইন। সেই সঙ্গে বাবা-মায়েদের তাদের সন্তানদের ব্যাপারে তথ্য জানা নিশ্চিত করবে। আইনটি শিক্ষার্থীদেরও সুরক্ষা দেবে। কারণ, কোনো শিক্ষার্থীর যদি বাবা-মায়ের কাছ থেকে শারীরিক ও মানসিকভাবে ক্ষতির শিকার হওয়ার আশঙ্কা থাকে তাহলে স্কুল সাপোর্ট স্টাফকে এর সঙ্গেহ সম্পৃক্ত করা হবে।

ক্রাউন ইনভেস্টমেন্টস কর্পোরেশন মন্ত্রী ডাস্টিন ডানকান ২০ অক্টোবর সকালে বলেন, গত হেমন্তে একটি স্কুল বিভাগ শিশুরা ইচ্ছুক না হলে বাবা-মাকে তা না জানানোর নীতি গ্রহণ করে একটি স্কুল বিভাগ। বিষয়টি জানার পর সরকার সে ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এই নির্দেশনার মানতে পারেননি এমন শিক্ষকরা বিষয়টি আমাকে অবহিত করেন।

কিন্তু প্রাদেশিক শিক্ষক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন গ্রুপ সরকারের এই পদক্ষেপের সমালোচনা করেছে। সাস্কেচুয়ান টিচার্স ফেডারেশন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা এক বার্তায় বলেছে, বিল ১৩৭ সাস্কেচুয়ানের প্রত্যেক শিক্ষককে কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে ফেলে দিল। তারা যদি আইন মানেন তাহলে শিশুরা বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে পড়ে যেতে পারে। আর অমান্য করার অর্থ হলো তাদের ওপর আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের সুযোগ উন্মুক্ত করে দেওয়া।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles