26.6 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

ভ্যানকুভারে শিখ নেতা হত্যার সঙ্গে ভারতের সম্পৃক্ততা

ভ্যানকুভারে শিখ নেতা হত্যার সঙ্গে ভারতের সম্পৃক্ততা
প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেন কানাডিয়ান নাগরিকের হত্যার সঙ্গে ভাত সরকারের এজেন্টের সম্ভাব্য সম্পর্ক থাকার যে অভিযোগ তার বিশ্বাসযোগ্যতা খুঁজে দেখতে গত কয়েক সপ্তাহ কাজ করেছে কানাডিয়ান সিকিউরিটি এজেন্সিগুলো

ভ্যানকুভারের কাছে শিখ নেতাকে গুলি করে হত্যার সঙ্গে ভারত সরকারের সম্পৃক্ততার বিশ^াসযোগ্য গোয়েন্দা তথ্য পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এর পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় এক কূটনীতিককে সোমবার দেশ ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে কানাডা।

ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার সারেতে ১৮ জুন হারদিপ সিং নিজারাস তার গুরুদুয়ারার পার্কিং লটে গুলিতে নিহত হন। এ ঘটনার সঙ্গে ভারত সরকারের হাত রয়েছে বলে দাবি করে আসছেন কানাডার শিখ সম্প্রদায়ের নেতারা। তবে এই হত্যাকান্ডেের সঙ্গে বিদেশি হস্তক্ষেপের কোনো সংযোগ খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে এর আগে জানিয়েছিল পুলিশ। তবে এই অভিযোগের পেছনে বিশ^াসযোগ্যতা রয়েছে বলে সোমবার বিকালে হাউস অব কমন্সে দেওয়া এক বক্তৃতায় জানান প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

- Advertisement -

তিনি বলেন, কানাডিয়ান নাগরিকের হত্যার সঙ্গে ভাত সরকারের এজেন্টের সম্ভাব্য সম্পর্ক থাকার যে অভিযোগ তার বিশ^াসযোগ্যতা খুঁজে দেখতে গত কয়েক সপ্তাহ কাজ করেছে কানাডিয়ান সিকিউরিটি এজেন্সিগুলো। কানাডার মাটিতে কোনো কানাডিয়ান নাগরিকের হত্যাকান্ড বিদেশি সরকারের সম্পৃক্ততা আমাদের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘনের শামিল এবং এটা গ্রহণয্গ্যো নয়।
ট্রুডো বলেন, নয়া দিল্লিতে অনুষ্ঠিত জি২০ সম্মেলনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে সরাসরি বিষয়টি উত্থাপন করেন তিনি। সেই সঙ্গে এ ব্যাপারে তার পদক্ষেপ দাবি করেছেন। আপনারা জানেন যে, গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আমরা আমাদের মিত্রদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছি। এ ঘটনার গভীরে যেতে ভারত সরকারের প্রতি কানাডার সঙ্গে সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করার আহ্বান আমি অব্যাহত রাখছি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেলানি জোলির কার্যালয় থেকে বলা হয়েছে, যে কূটনীতিককে পরিত্যাজ্য করা হয়েছে তার নাম হচ্ছে পবন কুমার রায়। তার বিভাগ তাকে পাবলিক রেজিস্ট্রিতে অটোয়াভিত্তিক ডিপ্লোমেটিক এজেন্ট হিসেবে তালিকাভুক্ত করেছে।

জোলি বলেন, রাই নয়া দিল্লির রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালিসিস উইং (র) এর কানাডিয়ান প্রধান। এ ঘটনার ফলাফল হিসেবে তাকে কানাডা ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কারণ, এ ঘটনার গভীরে যেতে অটোয়া ভারতের কাছ থেকে পূর্ণ সহযোগিতা চাইছে। তবে ভারত কোনো তদন্তে সহযোগিতা করছে কিনা সে ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

পাঞ্জাব অঞ্চলে পৃথক শিখ রাজ্যের পক্ষে কথা বলায় ভারত নিজারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার পরোয়ানা জারি করেছিল। আন্দোলনকারীরা একে বলে থাকেন খালিস্তান। দীর্ঘদিন ধরে ভারত এই দাবি করে আসছে যে, এই আন্দোলনকারীরা ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা হুমকিতে ফেলে দিচ্ছে। যদিও কানাডা বলে আসছে, সহিংসতার উস্কানি না দিলে কানাডিয়ান নাগরিকদের মত প্রকাশের স্বাধীনতা রয়েছে।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles