16.1 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪

জীবনে বড় সর্বনাশ কীভাবে ঘটেছে, জানালেন তসলিমা নাসরিন

জীবনে বড় সর্বনাশ কীভাবে ঘটেছে, জানালেন তসলিমা নাসরিন
তসলিমা নাসরিন

হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে নিজের পরিচয় গোপন রাখায় জীবনের সবচেয়ে বড় সর্বনাশ ঘটে গেছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ থেকে নির্বাসিত হয়ে ভারতে থাকা লেখিকা তসলিমা নাসরিন। গতকাল সোমবার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসে তিনি এ কথা বলেন।

তসলিমা নাসরিন বলেন, ‘আমি অতি সাধারণ মানুষের জীবনযাপন করি। শাক সবজি মাছ মাংস চাল ডাল নিজে কিনি। আনাজ পাতি নিজে কিনি। দরদাম করে কিনি। মাছের বাজারের নোংরা জলের ছিটে এসে আমার গায়ে লাগে। কোথাও আমি আমার পরিচয় দিই না। কেউ কেউ আমার মুখ দেখে আমি কে চিনতে পারে, কেউ চিনতে পারে না। পরিচয় দিয়ে সুবিধে নেওয়ার লোক আমি নই।’

- Advertisement -

চিকিৎসা নিতে যাওয়ার অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে এই লেখিকা বলেন, ‘হাঁটুতে ব্যথা পেয়ে যেদিন কাছের হাসপাতালে গিয়েছিলাম হাঁটুর এক্সরে করতে, আর যে লোক তখন প্ল্যান করেছিল, আমাকে মিথ্যে বলে, ভয় দেখিয়ে,ধরে বেঁধে রাতারাতি হিপ কেটে ফেলে দেবে, সে লোককেও আমি আমার পরিচয় বলিনি। আমার সঙ্গে যে গিয়েছিল, সে নীরব দর্শকের ভূমিকা নিয়েছিল, সেও আমার পরিচয় কাউকে জানায়নি। ক্রাইমের প্ল্যান করা সার্জন ভেবেছিল আমি আত্মীয়স্বজনহীন বন্ধুবান্ধবহীন দূর কোনো দেশ থেকে আসা একা এক পয়সাওয়ালা মুসলমান।’

তসলিমা নাসরিন বলেন, ‘জীবনের সবচেয়ে বড় সর্বনাশ ঘটে গেছে নিজের পরিচয় না দিয়ে। এখন আর প্রশ্নই ওঠে না কোথাও নিজের পরিচয় দেওয়ার। শত প্রয়োজনেও নয়। যা হয় হোক। কী আর হবে? অত বড় সর্বনাশ তো আর হবে না।’

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles