18.9 C
Toronto
বুধবার, মে ২২, ২০২৪

বাবা-ছেলের দিকে কেচাপ চিপের ঢেউ

বাবা-ছেলের দিকে কেচাপ চিপের ঢেউ
লিবারম্যান বলেন প্রথমে এলো নো ফ্রিলস তারপর লেস তারপর ওল্ড ডাচ এবং তারপর হাইঞ্জ এক সপ্তাহের মধ্যেই এগুলো এলো

কেচাপ চিপের স্বর্গভূমিতে ভ্রমণ শেষে ফেরার পর আমেরিকনা বাবা-ছেলের দোর গোড়ায় বিপুল সংখ্যক হাইঞ্জের বোতল এসে হাজির হয়েছে। রিচ লিবারম্যান সিটিভি নিউজ টরন্টোকে বলেন, কেচাপের বক্সগুলো দেখে আমার মন খুশিতে ভরে গিয়েছিল।

লিবারম্যান ও তার ১৫ বছরের ছেলে জ্যাকব অন্টারিওর নায়াগ্রা ফলসে গ্রীষ্মকালীন ভ্রমণ শেষে ভার্জিনিয়ায় তাদের বাড়িতে ফেরেন। সঙ্গে করে নিয়ে আসেন জ্যাকবের পছন্দের ৪০ ব্যাগ কেচাপ চিপ। এর কিছুক্ষণ পরই নয় কেস চিপ তাদের বাড়িতে পাঠানো হয়। বিষয়টি এখানেই থেমে থাকেনি।

- Advertisement -

লিবারম্যান বলেন, প্রথমে এলো নো ফ্রিলস , তারপর লে’স, তারপর ওল্ড ডাচ এবং তারপর হাইঞ্জ। এক সপ্তাহের মধ্যেই এগুলো এলো। বোতলের সঙ্গে হাইঞ্জ একটি টি-শার্টও পাঠিয়েছে। তাতে লেখা আছে ‘অ্যানুয়াল লিবারম্যান কেচাপ ক্রু রোড ট্রিপ’। টি-শার্টের বুক বরাবর এটা লেখা আছে।
লিবারম্যান এর আগে সিটিভি নিউজ টরন্টোকে বলেছিলেন, জ্যাকব বধির এবং সে দেখতেও পায় না। সুতরাং কারের সেন্সেশন সে ভালোবাসে।

জ্যাকব ও তার মা যে রাতে পার্টির আয়োজন করেন সে রাতেই কেসগুলো আসে। তাদের সরবরাহে বাধা দেওয়ার কোনো অভিপ্রায় লিবারম্যানের ছিল না। এর পরিবর্তে তারা অতিরিক্ত স্ন্যাক দান করে দেওয়ার কথা চিন্তা করেন। কেসগুলো জ্যাকবের পুরোনো বিদ্যালয় ও স্থানীয় একটি প্রাপ-প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়ে আসেন। পরবর্তীতে অতিমাত্রায় খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় থাকা পরিবারগুলোর মাঝে সেগুলো বিতরণ করা হয়।
লিবারম্যান বলেন, তিনি একটি সুপ কিচেন নিয়ে গবেষণা করছেন। একই সঙ্গে যেসব কোম্পানি তাদেরকে পণ্য পাঠাতে চায় তাদেরকে সরাসরি সেগুলো চাহিদা আছে এমন সংগঠনকে দান করে দেওয়ার জন্য উৎসাহিত করেছেন তিনি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles