15.7 C
Toronto
সোমবার, মে ২৭, ২০২৪

দিনাজপুরের ইউপি সদস্য ছায়া রানীর সংসার চলে চা-পান বিক্রি করে

দিনাজপুরের ইউপি সদস্য ছায়া রানীর সংসার চলে চা-পান বিক্রি করে

নিজের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য নয়, জনসেবা করার জন্যই জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন ছায়া রানী রায় নামে এক মধ্যবয়সি নারী। পরপর দুবার ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েও এখনো তার জীবন-জীবিকা চলে দোকানে চা ও পান বানিয়ে এবং সবজি বিক্রি করে। সততার সঙ্গে জনসেবা করতে পেরে তৃপ্ত এই ইউপি সদস্য। এমন একজন জনপ্রতিনিধি পেয়ে খুশি এলাকার সর্বস্তরের মানুষ।

- Advertisement -

দিনাজপুর সদর উপজেলার ৪নং শেখপুরা ইউনিয়নের উত্তর গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা ছায়া রানী রায়। পরিবারের আহার জোগাতে স্বামী অমল চন্দ্র রায়সহ ৩২ বছর ধরে চা ও পানের দোকান চালান সদর উপজেলার পুরাতন গাবুড়ার বাজারে। একই দোকানে বিক্রি করেন সবজিও।

ছায়া রানীর চায়ের দোকানে সারাদিন চা পান করতে আসেন এলাকার মানুষ। এ সময় অনেকের অনেক সমস্যাই তার কানে আসে। সামর্থ্য অনুযায়ী মানুষের উপকারে কাজ করে আসছেন তিনি। এরই প্রেক্ষিতে এলাকার মানুষ চাওয়ায় ২০১৬ সালে প্রথমবারের মতো দাঁড়িয়ে বিপুল ভোটে শেখপুরা ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী সদস্য নির্বাচিত হন। পরে ২০২১ সালের ইউপি নির্বাচনে আবার একই এলাকার মহিলা সদস্য নির্বাচিত হন।

জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েও পরিবর্তন হয়নি তার ভাগ্যের। তাইতো এখনো চায়ের কাপ আর সবজির দোকানের মধ্যেই সীমাবদ্ধ তার পরিবারের জীবিকা। ছায়া রানী বলেন, তার ৫ ছেলের মধ্যে বড় ছেলে প্রতিবন্ধী। এরপর দুই ছেলের বিয়ে হয়েছে। দুই ছেলে লেখাপড়া করছে। সবাই একসঙ্গেই আছেন।

তিনি বলেন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর মাসিক ভাতা হিসাবে পান ৮ হাজার টাকা। এটা দিয়ে তার সংসার চলে না। বিভিন্ন প্রকল্প থেকে নাগরিকদের বঞ্চিত করে বাড়তি কোনো আয়ের চিন্তাও করেন না তিনি। যে দোকানটি চালাচ্ছে এটি তার নিজের জমিতে নয়। তাই প্রতি মাসে ভাড়া দিতে হয়। আগে পুরো সময়টা দোকানেই দিতে পারতেন। ইউপি সদস্য হওয়ার পর ইউনিয়ন পরিষদে যেতে হয় এবং বিভিন্ন মানুষের কাজেও যেতে হয়। এ জন্য এখন পুরো সময় দোকানে দিতে পারেন না। এরপরও জনপ্রতিনিধি হয়ে সততার সঙ্গে থাকতে পেরে নিজেকে তুষ্ট মনে করেন তিনি।

তার সততা, নিষ্ঠা ও জনগণের সেবা করার মানসিকতার প্রশংসা করেন ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানও। শেখপুরা ইউপি চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বলেন, মানুষের যে কোনো সমস্যায় পাশে থাকেন বলেই একজন চায়ের দোকানদার হয়েও ইউপি সদস্য হিসাবে ছায়া রানী জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। মানুষের কল্যাণেই কাজ করে থাকেন তিনি। এমন একজন সৎ ও যোগ্য জনপ্রতিনিধি পেয়ে খুশি এলাকার মানুষও।

সূত্র : যুগান্তর

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles