15.6 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২১, ২০২১

অন্টারিওতে পুরোপুরি ভ্যাকসিনেটেড মানুষের হার ১ শতাংশের মতো বেড়েছে

ডা. কিয়েরান মুর

গত এক সপ্তাহে অন্টারিও অতিরিক্ত ১ লাখ ২ হাজার ডোজ ভ্যাকসিন প্রয়োগ করেছে। এর ফলে পুরোপুরি ভ্যাকসিনেটেড মানুষের হার ১ শতাংশের মতো বেড়েছে। তবে অন্টারিওর ১২ বছর ও তার বেশি বয়সী ৯০ শতাংশ মানুষকে উভয় ভোজ ভ্যাকসিন দিতে আরও দুই মাস সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন প্রদেশের জনস্বাস্থ্য বিভাগের চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. কিয়েরান মুর। সাম্প্রতিক সময়ে ভ্যাকসিনেশনের গতি বাড়লেও এই সময়টার প্রয়োজন হবে বলে মনে করেন তিনি।

ডা. কিয়েরান মুর বলেন, অধিক সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রভাব হ্রাসে ও কোভিড-১৯ মহামারিকে আস্তে আস্তে এনডেমিকে নামিয়ে আনতে ৯০ শতাংশ মানুষকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনার লক্ষ্য পূরণের বিকল্প নেই।

যদিও ১২ বছর ও তার বেশি বয়সী ৭৯ শতাংশ অন্টারিওবাসী এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন ডোজ পূর্ণ করেছেন অর্থাৎ পুরোপুরি ভ্যাকসিনেটেড বলা যায় তাদেরকে। ফোর্ড সরকার সম্প্রতি ভ্যাকসিন সনদ ব্যবস্থা বাধ্যতামূলক করার ঘোষণা দেওয়ার পার প্রথম ডোজ গ্রহণের হার বাড়লেও ভ্যাকসিন ডোজ সম্পূর্ণ করার হার এখনও সেই মাত্রায় পৌঁছেনি।

মঙ্গলবার এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে ডা. মুর এ ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এখনও আমরা ধীর গতির মধ্যে আছি। এই গতি অব্যাহত থাকলে ৯০ শতাংশ অন্টারিওবাসীকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনতে আরও ৬০ দিন সময়ের প্রয়োজন হবে। তবে অদূর ভবিষ্যতে ভ্যাকসিনেশনে আমরা কাক্সিক্ষত গতি আনতে সক্ষম হবো বলে আমি আশাবাদী। দীর্ঘ এক সপ্তাহের ছুটির স্বাভাবিকভাবেই সপ্তাহের শেষ দিকে আমরা সংক্রমণের উর্ধ্বগতি দেখতে পাবো এবং পুরো ফল ও শীতজুড়ে ঝুঁকিটা থাকবে। এই কারণেও ভ্যাকসিন নিয়ে সুরক্ষিত থাকা উচিত।

প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড ভ্যাকসিন সনদ ব্যবস্থা ঘোষণা করার পর প্রথম ডোজ ভ্যাকসিন নেওয়ার সাপ্তাহিক গড় হারে ভালোই উন্নতি হয়েছে। ১৮ থেকে ৫৯ বছর বয়সীদের মধ্যে এ হার বেড়েছে। তবে ঘোষিত সময়সীমার মধ্যে ৯০ শতাংশ নাগরিককে পুরোপুরি ভ্যাকসিনের আওতায় আনার লক্ষ্য অর্জনে এ হার বৃদ্ধি যথেষ্ট নয় বলে মনে করেন ডা. কিয়েরান মুর।

ডা. মুর যখন এই মন্তব্য করছেন তখন অন্টারিওর সায়েন্স অ্যাডভাইজরি টেবিলও তাদের নতুন উপাত্ত প্রকাশ করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, ভ্যাকসিন আক্রান্ত ব্যক্তিদের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি ৯৭ দশমিক ৭ শতাংশ কমিয়ে আনে। হাসপাতালে ভর্তি হ্রাস করে ৯৫ দশমিক ৯ শতাংশ। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাও ভ্যাকসিন নিরপেক্ষ অবস্থার তুলনায় ৮৫ দশমিক ৮ শতাংশ কম আছে।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles