24.3 C
Toronto
রবিবার, জুন ২৩, ২০২৪

নারী পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে দাগি অপরাধীর গভীর প্রেম, অতঃপর..!

নারী পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে দাগি অপরাধীর গভীর প্রেম, অতঃপর..!
ছবি আনন্দবাজার পত্রিকা থেকে সংগৃহীত

অপরাধীকে যার পাকড়াও করার কথা, সে-ই অপরাধীর সঙ্গেই কিনা প্রেম এক নারী পুলিশ কর্মকর্তার! এই ভালোবাসার জন্যই তদন্তকারীর হাত থেকে প্রেমিককে বাঁচালেন তিনি। তরুণী পুলিশ কর্মকর্তার এহেন কাণ্ডে হতবাক হয়ে গেছেন তার সহকর্মীরা। যার জেরে তদন্তকারীদের আতশকাচের তলায় চলে এসেছেন ওই তরুণী পুলিশ কর্মকর্তার। পুলিশের সঙ্গে অপরাধীর এ প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে সরগরম নিউইয়র্ক। খবর নিউইয়র্ক পোস্টের।

আমেরিকায় ব্রঙ্কস পুলিশ কর্মকর্তা আলিসা বজরকতারেভিচের (৩৩) সঙ্গে এক মাদক কারবারির প্রেম খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে। আলিসার প্রেমিকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছিল। তার গাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। অভিযোগ, সেই সময় তদন্তকারীদের হাত থেকে প্রেমিককে রক্ষা করেছেন আলিসা। আর এ নিয়ে জোর আলোচনা শুরু হয়েছে সে দেশে।

- Advertisement -

পুলিশকর্মী হওয়ার সুযোগ কাজে লাগিয়ে তদন্ত প্রক্রিয়ায় নাকি আলিসা বাধা দিতেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, আলিসার জন্যই নাকি তার প্রেমিককে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। বেশ কয়েক দিন ধরেই আলিসার প্রেমিকের ওপর নজর রেখেছিল পুলিশ। মাদক পাচার কারবারে আলিসার প্রেমিক জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি আলিসার প্রেমিকের গাড়ি আটকায় পুলিশ।

আলিসার প্রেমিককে গ্রেফতারের পরিকল্পনা করেছিল পুলিশ। সেই মতো তার গাড়িতে তল্লাশি চালানোর সিদ্ধান্ত নেন তদন্তকারীরা। গাড়িতে তল্লাশির সময় প্রেমিকের সঙ্গে ছিলেন আলিসাও। সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি থেকে নেমে হম্বিতম্বি শুরু করেন আলিসা। নিজে পুলিশ হওয়ায় তিনি জোর খাটান বলে অভিযোগ উঠেছে। আলিসার সঙ্গে তদন্তকারীদের বচসাও বাধে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আলিসার সঙ্গে পেরে ওঠেননি তদন্তকারীরা। তাই পিছু হটতে হয় তাদের।

মাদক কারবারির সঙ্গে আলিসার প্রেম নিয়ে গত এক বছর ধরেই নিউইয়র্কে পুলিশ মহলে আলোচনা চলছে। আলিসার সহকর্মীরা এই সম্পর্কের কথা জানতেন। আলিসার প্রেমিক মোটেই ভালো মানুষ নন বলে দাবি করেছেন তার সহকর্মীরা। এমনকি ওই যুবকের সঙ্গ ছাড়ার জন্য আলিসাকে পরামর্শও দেন তার সহকর্মীরা। কিন্তু সহকর্মীদের কথায় কান দেননি তিনি। কারণ প্রেমে অন্ধ আলিসা।

নিউইয়র্ক পোস্ট সূত্রে খবর, একটি জিমে ওই মাদক কারবারির সঙ্গে আলাপ হয়েছিল আলিসার। সেই আলাপই পরে প্রেমে গড়ায়। ৩৩ বছর বয়সি আলিসা ১১ বছর নিউইয়র্ক পুলিশে কাজ করেছিলেন। গত বছর আলিসাকে ব্রঙ্কস ডাকাত দমন শাখায় বদলি করা হয়েছিল। শহরে যেসব ডাকাতির ঘটনা ঘটে, তার তদন্তে যুক্ত রয়েছেন আলিসা।

পুলিশের দাবি, মাদক কারবারের তদন্ত প্রক্রিয়ার গোপন কথা ফাঁস করছেন আলিসা। অনেক ক্ষেত্রেই তদন্ত প্রক্রিয়াকে তিনি প্রভাবিত করছেন। তার প্রেমিক মাদক কারবারি নন বলে বারবার দাবি করেছেন আলিসা। পুলিশের অভিযোগ, নিজের প্রেমিককে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন আলিসা। আলিসার প্রেমিককে এখনো গ্রেফতার করেনি পুলিশ। তার নামও প্রকাশ করা হয়নি। তবে তাকে নজরে রেখেছেন তদন্তকারীরা। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles