1.6 C
Toronto
সোমবার, ফেব্রুয়ারী ৬, ২০২৩

বিশ্বের তৃতীয় ধনী প্রাণী টেলর সুইফটের বিড়াল

বিশ্বের তৃতীয় ধনী প্রাণী টেলর সুইফটের বিড়াল

গ্র্যামি পুরস্কার বিজয়ী গায়িকা টেলর সুইফট বিশ্বের সবচেয়ে সফল নারীদের মধ্যে একজন। বিশ্বজুড়ে ভক্ত অনুরাগী সহ বিশ্বের ধনী গায়িকাদের তালিকাতেও তিনি অন্যতম একজন। তবে শুধু টেলর সুইফটই নয়, তার বিড়াল অলিভিয়া বেনসনও তার মতোই ধনী! বর্তমানে ধনী পোষা প্রাণীর তালিকায় তৃতীয় স্থান দখল করে নিয়েছে টেলর সুইফটের বিড়াল অলিভিয়া।

- Advertisement -

২০১৪ সাল থেকেই অলিভিয়া টেলরের সাথে আছে। অলিভিয়া ছাড়াও টেলরের আরো দুটি বিড়াল রয়েছে। মেরেডিথ গ্রে এবং বেঞ্জামিন বাটন।

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী পোষা প্রাণীর তালিকা তৈরি হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের জনপ্রিয়তা, আয় ও মালিকানাসূত্রে পাওয়া তাদের সম্পদের উপর নির্ভর করে। যদিও অলিভিয়ার নিজের কোনো ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট নেই। তাকে মাঝে মাঝে টেলর সুইফটের অ্যাকাউন্টে বিভিন্ন ছবি এবং ভিডিওতে দেখা যায়। ওয়েবসাইট অনুসারে, গায়িকার বিড়ালের মূল্য আনুমানিক ৯৭ মিলিয়ন ডলার। ফোর্বস ২০২২ এর রিপোর্ট অনুযায়ী টেলর সুইফটের আনুমানিক সম্পদ ৫৭০ মিলিয়ন ডলার।

অলিভিয়াকে তার মালিক টেলরের সাথে বেশ কিছু বাণিজ্যিক কাজেও দেখা গেছে। ব্ল্যাঙ্ক স্পেস-এর মতো গায়িকার বেশ কয়েকটি মিউজিক ভিডিওতে দেখা গেছে অলিভিয়াকে। দুজনে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনেও একসঙ্গে হাজির হয়েছেন এবং অলিভিয়ার নিজস্ব মার্চেন্ডাইজ লাইনও রয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রচুর জনপ্রিয় অলিভিয়া। তার বেশ কয়েকটি ফ্যানক্লাবও রয়েছে।

টেলর সুইফটের বিড়াল ছাড়াও তালিকায় জনপ্রিয় টিভি ব্যক্তিত্ব অপরাহ উইনফ্রে’র কুকুরগুলোও রয়েছে। প্রয়াত ফ্যাশন ডিজাইনার কার্ল লেগারফেল্ডের বিড়াল চৌপেটেও জায়গা করেছে তালিকায়। কার্লের মৃত্যুর পর উত্তরাধিকারসূত্রে প্রায় ১৩ মিলিয়ন ডলার পেয়ে তালিকায় স্থান পেয়েছে চৌপেটে। বেটি হোয়াইটের কুকুর পন্টিয়াকও তালিকায় জায়গা পেয়েছে। অভিনেত্রীর মৃত্যুর পর উত্তরাধিকার সূত্রে ৫ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে পন্টিয়াক। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে প্রিমিয়াম ক্যাট ফুডের মালিকের বিড়াল নালা ক্যাট, যার মূল্য ১০০ মিলিয়ন ডলার।

ইতিমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে নালা। তালিকার শীর্ষস্থানে রয়েছে গান্থার কর্পোরেশনের মালিকানাধীন জার্মান শেফার্ড ‘গান্থার ৫’। ৫০০ মিলিয়ন ডলারের মালিক এই জার্মান শেফার্ড।

সূত্র : ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউকে

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles