-2.3 C
Toronto
সোমবার, জানুয়ারী ৩০, ২০২৩

অনৈতিক সম্পর্ক জেনে যাওয়ায় পান্নাকে হত্যা করেছে স্বামী, অভিযোগ স্বজনদের

অনৈতিক সম্পর্ক জেনে যাওয়ায় পান্নাকে হত্যা করেছে স্বামী, অভিযোগ স্বজনদের
পান্না দাশ সুমি

অনৈতিক সম্পর্ক জেনে যাওয়ায় স্ত্রী পান্না দাশ সুমিকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তাঁর স্বামী অনুজ কর্মকারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় গত ১১ ডিসেম্বর ঢাকার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দেবদাশ চন্দ্র অধিকারীর আদালতে হত্যা মামলা করেন নিহতের ছোট ভাই সঞ্জয় দাশ। এতে পান্নার স্বামী অনুজ, তার মা আল্পনা রায় ও বাবা অর্জুন কর্মকারকে আসামি করা হয়েছে।

রাজধানীর বাড্ডা থানার ১৮ নম্বর ছয়তলা ভবনের একটি ফ্ল্যাট থেকে গত ১ ডিসেম্বর সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো পান্নার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ দম্পতির রায়া কর্মকার নামের ১৪ মাস বয়সী এক সন্তান রয়েছে।

- Advertisement -

অনুজের বাড়ি চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ থানার অক্সিজেন এলাকার এডুকেশন এমপ্লয়িজ হাউজিং সোসাইটিতে। আর পান্নার বাড়ি নগরীর কোতোয়ালি থানার দেওয়ান বাজার মাছুয়া ঝর্ণা লেনে। পান্নার সঙ্গে ২০২০ সালের ১৩ মার্চ অনুজের বিয়ে হয়। ঢাকায় ‘হেলথ কেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডে’ মার্কেটিং বিভাগে অনুজের কর্মসূত্রে ঢাকায় বসবাস করতেন পান্না।

মামলার বাদী সঞ্জয় দাশের অভিযোগ, এক নারীর সঙ্গে অনুজের অনৈতিক সম্পর্ক পান্না জেনে যাওয়ার পর থেকে তাঁর ওপর নেমে আসে নির্যাতন। এরই ধারাবাহিকতায় হত্যা করে লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে প্রচার করে অনুজ। এমনকি ময়নাতদন্ত ঠেকাতে তিনি আমার বড় ভাই প্রকাশ দাশকে ভয়ভীতি দেখিয়েছেন। আমরা বোন হত্যার বিচার পেতে আদালতে মামলা করেছি।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে অনুজ কর্মকার সমকালকে বলেন, ‘পান্নার মৃত্যু নিয়ে যে অভিযোগ করা হচ্ছে, তা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। সে আত্মহত্যা করেছে এবং ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে সত্য বেরিয়ে আসবে। কারও সঙ্গে আমার অনৈতিক কোনো সম্পর্ক নেই।’

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles