14.4 C
Toronto
রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২

ভোট চাইতে দ্বারে দ্বারে কুইবেক সলিডেয়ার

- Advertisement -
কুইবেক লিবারেল পার্টির নেতা ডোমিনিক অ্যাঙ্গলাদে

মন্ট্রিয়লের দক্ষিণ-পশ্চিমের সেইন্ট হেনরি সেইন্ট অ্যানি রাইডিং অন্য সব রাইডিংয়ের মতো নয়। কুইবেক লিবারেল পার্টির নেতা ডোমিনিক অ্যাঙ্গলাদে সেখানকার এমএনএ এবং এই হেমন্তে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে আবারও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী তিনি।
অ্যাঙ্গলাদে বলেন, সাত বছর ধরে এখানকার এমএনএ আমি। প্রাত্যহিক জনগণের সঙ্গে আমার যোগাযোগ হয় এবং তাদের ইস্যুগুলো আমি বুঝি।

কিন্তু কুইবেক সলিডেয়ারের (এসকিউ) নেতা গ্যাব্রিয়েল ন্যাদো দুবোইসের বিশ্বাস, তাঁর দলই জিতবে এখানে। একানকার প্রার্থী গুইলোমে ক্লিশ-রিভার্ডকে সপরিচয় করিয়ে দিতে ঘরে ঘরে যাচ্ছেন তিনি। দুবোইস বলেন, দক্ষিণপশ্চিম মন্ট্রিয়লের বাসিন্দারা লিবারেল পার্টির প্রার্থীকে দিয়ে চেষ্টা করেছে এবং তার ফলাফলও দেখছে।

তিনি কুইবেকে বসবাসকারীদের এটা বোঝানোর চেষ্টা করছেন যে, এই রাইডিংয়ে কুইবেক লিবারেলদের দীর্ঘ ইতিহাসের কারণে তাদের সরিয়ে তাঁর দল একটা সুযোগ পেতেই পারে।

দুবোইস দাবি করেনে, ক্ষমতাসীন কোয়ালিশন অ্যাভেনির কুইবেক (সিএকিউ) গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোর সমাধান করতে পারেনি এবং লিবারেল পার্টিও এজন্য সরকারকে চ্যালেঞ্জ করতে ব্যর্থ হয়েছে। মন্ট্রিয়লে যে ঐতিহাসিক আবাসন সংকট লিবারেল পার্টি তার একটি কারণ।

তিনি ও তাঁর প্রার্থী বলেন, আবাসন সংকটের পাশাপাশি পরিবশে, গণপরিবহণ ও অর্থনীতি ভোটারদের কাছে প্রধান ইস্যু। ক্লিশ-রিভার্ড বলেন, তাঁর দল এই নির্বাচনে আসন সংখ্যা বাড়িয়ে নিতে পারবে বলে আশা করছে।
একাধিক জরিপ বলছে, নির্বাচনে লিবারেল ও কিউএস সিএকিউয়ের চেয়ে বেশ পিছিয়ে থাকবে। লিবারেল পার্টি দ্বিতীয় ও কিউএস তৃতীয় স্থানে থাকবে।

লিবারেল পার্টিকে মন্ট্রিয়লে নাজুক হিসেবে দেখছে কিউএস। কারণ, নতুন দলগুলোও এখন অ্যাঙ্গলোফোনদের নিজেদের দলে ভেড়াচ্ছে। সাধারণত তাঁরা লিবারেল পার্টিকেই ভোট দিয়ে থাকে।

বিল ৯৬ নিয়ে উদ্বেগের কারণে ক্লিশ-রিভার্ড জাতিগতভাবে বিচিত্র সেইন্ট হেনরি-সেইন্ট অ্যানি রাইডিংয়ে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারেন। সরকার ভাষা আইনটি নতুন করে ফিরিয়ে এনেছে এবং কিউএস এতে সমর্থন দিয়েছে।
বিষয়টি ক্লিশ-রিভার্ড বলেন, বিল ৯৬ নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন আমরা শুনছি। আমি যেটা করতে চাই তা হলো একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক এজেন্ডা।

অ্যাঙ্গলাদের দাবি, এই রাইডিংয়ের লোকজন স্পষ্ট বিভাজন নিয়ে উদ্বিগ্ন। আমরা বিল ৯৬ এর বিপক্ষে ভোট দিয়েছিলাম। বিল ৯৬ এর বেশ কিছু বিষয় আমরা বাতিল চাই। কারণ, এগুলো কুইবেকে বিভক্তি সৃষ্টি করছে।
৩ অক্টোবর নির্বাচনে ভোট গ্রহণের কথা রয়েছে।

Related Articles

Latest Articles