8.6 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২

রাজা চার্লসের প্রথম ভাষণ, আজীবন দেশ ও জাতির সেবা করার অঙ্গীকার

- Advertisement -

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর দেশটির নতুন রাজার মুকুট পড়লেন তার ছেলে যুবরাজ চার্লস। দেশটির নিয়ম অনুযায়ী উত্তরাধিকারী হিসেবে কোনো ধরনের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই ব্রিটেনের সিংহাসনে বসলেন চার্লস। ফলে তিনি এখন রাজা তৃতীয় চার্লস নামে পরিচিতি লাভ করবেন। নতুন রাজা তৃতীয় চার্লস জাতির উদ্দেশে তার প্রথম ভাষণ দিয়েছেন।

ভাষণে তিনি পুরো রাজপরিবারের পক্ষ থেকে গভীর শোকের অনুভূতি নিয়ে কথা বলছেন। তিনি বলেন, তার মৃত্যুতে আমরা গভীর মর্মাহত। বুকে অনেক কষ্ট নিয়ে আজ আপনাদের সামনে কথা বলছি। পুরো রাজপরিবারের পক্ষ থেকে আমি গভীর শোকানুভূতি নিয়ে আপনাদের সঙ্গে মিলিত হয়েছি।

রাজা চার্লস সম্মান, মর্যাদা এবং ভালোবাসার সাথে ব্রিটেন ও কমনওয়েলথের জনগণের সেবা করার অঙ্গীকার করেন তার ভাষণে। তার মা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ তার রাজত্বের সূচনায় যে অঙ্গীকার করেছিলেন সেই একই অঙ্গীকার তিনি নবায়ন করতে চান।

তিনি বলেন, ‘রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ দারুণ একটা জীবন পার করেছেন। তিনি সবসময় তার লক্ষ্যে অবিচল ছিলেন। আমিও মায়ের মতো আমার লক্ষ্যে অবিচল থেকে জনগণের সেবা করতে চাই।

বাংলাদেশ সময় শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১১টায় বাকিংহ্যাম প্যালেস থেকে ব্রিটিশ জাতি ও কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর উদ্দেশে তিনি এ ভাষণ দেন। যা সরাসরি টিভিতে সম্প্রচারিত হয়।এ সময় প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্য প্রার্থনা কামনা করেন চার্লস।

তিনি আরও বলেন, ‘ আমরা প্রিয় মায়ের কাছে ঋণী।তিনি আমাদের পুরো পরিবারের জন্য অনুপ্রেরণা ও উদাহরণ হয়ে থাকবেন। ভালোবাসা, স্নেহ, বোঝাপড়া ও পথ-নির্দেশনার জন্য যে কোনো পরিবার তাদের মায়ের কাছে ঋণী হতে পারে।’

রাজা তৃতীয় চার্লস বলেন, ‘ আমার মা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তিনি তার জীবন নিজের জনগণের সেবায় কাটিয়ে দেবেন। সেই প্রতিশ্রুতির চেয়ে বেশি কিছু দিয়ে গেছেন তিনি। ৭০ বছরেরও বেশি সময় ধরে রানি হিসেবে আমার মা বহু মানুষের সেবা করেছেন।’

এর আগে বৃহস্পতিবার স্কটল্যান্ডের ব্যালমোরাল দুর্গে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন ৯৬ বছর বয়সী রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। ৭০ বছর ব্রিটেনের সিংহাসনে ছিলেন তিনি।

ব্রিটেনের সবচেয়ে বেশি সময় ধরে ক্ষমতায় থাকা রানি দ্বিতীয় এলিভাবেথ স্কটল্যান্ডের ব্যালমোরাল দুর্গে গ্রীষ্মকালীন অবকাশ কাটাচ্ছিলেন।

বৃহস্পতিবার সকালে রানির স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর চিকিৎসকরা উদ্বেগ জানান। তখন তারা রানিকে চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন। রানির অসুস্থতার খবরে স্কটল্যান্ড ছুটে যান তার স্বজনরা। ১৯৫২ সালে ব্রিটেনের রানি হিসেবে দ্বিতীয় এলিজাবেথের অভিষেক হয়।

মায়ের মৃত্যুর পর তার পুত্র রাজা তৃতীয় চার্লসের সিংহাসনে অধিষ্ঠিত হবার মধ্য দিয়ে এখন ব্রিটিশ ইতিহাসের এক নতুন যুগের সূচনা হচ্ছে।

এর আগে লন্ডনে বাকিংহাম প্রাসাদে ফেরার পর সেখানে সমবেত বিপুল জনতা তাকে স্বাগত জানায়।

নতুন রাজা ১৫ মিনিট ধরে প্রাসাদের সামনে সমাগত মানুষের সাথে করমর্দন করেন। এ সময় যুক্তরাজ্যের জাতীয় সঙ্গীত ‘গড সেভ দ্য কিং’ গাইতে থাকেন।

এর আগে, রাজা তৃতীয় চার্লস ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসকে প্রথমবারের মত সাক্ষাৎ দেন। পার্লামেন্টে প্রয়াত রানির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে একটি বিশেষ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

সূত্র : বিবিসি

Related Articles

Latest Articles