12.7 C
Toronto
বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২

দুলাভাইয়ের সঙ্গে পরকীয়ার অভিযোগ, গৃহবধূর আত্মহত্যা

- Advertisement -

রাজবাড়ীর পাংশায় দুলাভাইয়ের সঙ্গে পরকীয়ার অপবাদ দেওয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে পলি খাতুন (২০) নামের এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। পলি খাতুন কাচারীপাড়া গ্রামের জবেদ মোল্লার মেয়ে ও চর আফড়া গ্রামের হাসান সরদারের স্ত্রী।

নিহতের পরিবারের দাবি মিথ্যা অপবাদ সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন পলি। আজ শুক্রবার সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠিয়েছে।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, পরকীয়ার অভিযোগে গতকাল সকাল ১০ টার দিকে পলির স্বামীর বাড়িতে একটি সালিশ হয়। সালিশে মেয়ে পক্ষের কেউ উপস্থিত না হওয়ায় ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. শাহীদ তার স্বামীর বাড়ি থেকে পলিকে বাবার বাড়িতে রেখে যায়।

পরে আজ ভোরে পলির বাবা জবেদ মোল্লা নামাজ পড়তে উঠে দেখেন তার মেয়ে গলায় ওড়না পেচিয়ে রান্না ঘরের বাঁশের সঙ্গে ঝুলছে। পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে বিষয়টি জানতে পারেন।

নিহত পলির বাবা জবেদ মোল্লা বলেন, ‘আমার বড় জামাই আহম্মেদ হোসেন গত বুধবার রাত ৮ টার দিকে গলার চেইন দিতে পলির শ্বশুড়বাড়ি যান। এ সময় পলির শ্বশুরবাড়ির লোকজন বড় জামাইকে পলির ঘরে আটকে রাখেন। রাত ২ টায় পলির স্বামী হাসান সরদার ফোন করে বিষয়টি জানায় এবং অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে বলে গালিগালাজ করে। রাতেই মিথ্যা অপবাদ দিয়ে নির্যাতন ও বড় জামাইকে মারপিট করা হয়। পরে বৃহস্পতিবার সকালে আমাদের কিছু না জানিয়ে মেয়েকে আমার বাড়িতে রেখে যায়।

পলির শাশুড়ি বলেন, ‘দুলাভাইয়ের বাড়িতে আসার বিষয়ে কেউই জানতাম না। রাত ১২ টার দিকে অন্য ছেলের বউরা তাদেরকে এক ঘরে দেখতে পেয়ে আটকে রেখেছিল। সকালে কি হয়েছে আমি আর কিছু জানি না।’

হাসানের ভাই বাবর আলী সরদারের স্ত্রী তারা বেগম বলেন, ‘দুলাভাইয়ের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক ছিল পলির। প্রায়ই বাড়িতে গিয়ে রাত যাপন করতো তারা। আগে ধরতে পারি নাই। গতকাল আমি তাদের হাতে নাতে আপত্তিকর অবস্থায় ধরেছি।’

ইউনিয়নের ৬ নম্বর ইউপি সদস্য মো. শাহীদ বলেন, এ ঘটনায় সালিশে দুই পক্ষের অবিভাবকদের উপস্থিত থাকার কথা ছিল। মেয়ের পক্ষ কোনো অবিভাবক উপস্থিত না থাকায় সালিশ হয়নি।

হাবাসপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল মামুন খান বলেন, উপস্থিত সবার সামনে পলি এবং তার দুলাভাই মাপ চেয়েছেন। পলির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাদের এলাকার মেম্বারকে দিয়ে তাকে তার বাবার বাড়ি পাঠানো হয়েছে।

পাংশা মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কামরুল বলেন, মৃতদেহ উদ্ধার করে রাজবাড়ী মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহেতের ভাই রাজা মোল্লা বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন।

সূত্র : আমাদের সময়

Related Articles

Latest Articles